Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বর্ষায় খুশকি মুক্ত থাকবেন যেসব উপায়ে

বর্ষার সময় আর্দ্রতা বেড়ে যাওয়ায় পাল্লা দিয়ে বাড়ে খুশকির সমস্যাও

আপডেট : ০৭ জুলাই ২০২৩, ০৮:৫৪ পিএম

চুলের, বিশেষ করে খুশকির সমস্যা আমাদের খুবই পরিচিত। ছোটো থেকে বড় বা নারী-পুরুষ সবারই এ সমস্যাটি হতে দেখা যায়। সাধারণত ত্বকের তৈলাক্তভাব ও চুলকানিপ্রবণ অবস্থার কারণে এ সমস্যাটি দেখা দেয়। বিশেষ করে বর্ষার সময় আর্দ্রতা বেড়ে যাওয়ায় পাল্লা দিয়ে বাড়ে খুশকির সমস্যাও।

আমরা যেটিকে খুশকি বলি, সেটি আসলে আমাদের ত্বকের মৃত কোষ। ত্বকে জমে থাকা অতিরিক্ত ময়লা ও তেল চিটচিটে ভাবের কারণে ত্বকের কোষগুলো বেশি মাত্রায়  মরে যায়। আর এর ফলে দেখা দেয় খুশকির সমস্যা। তবে খুব সহজ কিছু বিষয় মেনে চললে সহজেই খুশকির সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

মাথার ত্বক পরিষ্কার রাখা

ময়লার পাশাপাশি অতিরিক্ত তেলতেলে ভাব দূর করতে মাইল্ড শ্যাম্পু ব্যবহার করুন নিয়মিত চুল পরিষ্কার করতে হবে। কারণ পরিষ্কার মাথার ত্বক আর চুলে সহজে খুশকি হয় না।

অ্যান্টি-ড্যানড্রাফ শ্যাম্পু ব্যবহার

খুশকির সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে অ্যান্টি-ড্যানড্রাফ শ্যাম্পু ব্যবহার করুন। এসব শ্যাম্পুতে জিঙ্ক পাইরিথিওন, কেটোকোনাজল, কয়লা টার, বা সেলেনিয়াম সালফাইডের মতো সক্রিয় উপাদান থাকে, যা খুশকি কমাতে ভূমিকা রাখে।

মাথার ত্বক মালিশ

শ্যাম্পু ব্যবহারের আগে কিছুক্ষণ শুকনা চুলের গোড়া মালিশ (ম্যাসাজ) করুন। আঙুলের সাহায্যে ধীরে ধীরে ম্যাসাজ করতে হবে। এতে যেমনি রক্ত সঞ্চালন বাড়বে, তেমনি আটকে থাকা খুশকিও আলগা হবে।

গরম পানি এড়িয়ে চলা

চুল পরিষ্কারের জন্য গরম পানি ব্যবহার করবেন না। এর চেয়ে ঠান্ডা পানি বা কুসুম গরম পানি দিয়ে চুল ধোয়া শ্রেয়। কারণ গরম পানি কারণে চুল মসৃণতা হারিয়ে শুষ্ক হয়ে পড়ে। ফলে খুশকির সমস্যা বেড়ে যায়।

স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখা

চুলে ময়লা, তেল চিটচিটে ভাব ও খুশকির সমস্যা রোধে চিরুনি, হেয়ার ব্রাশ ও বালিশের কভার পরিষ্কার রাখতে হবে। এমনকি এগুলো কারও সঙ্গে ভাগাভাগি করা অনুচিত।

মাথার ত্বক না চুলকানো

খুশকির কারণে মাথার ত্বক প্রচণ্ড চুলকায়। নখের সাহায্যে চুলকালে ত্বক ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এমনকি খুশকির সমস্যাও বেড়ে যেতে পারে। এর পরিবর্তে নরম দাঁতের ব্রাশ দিয়ে ধীরে ধীরে চুল আঁচড়ান। এতে বাড়তি খুশকি আলগা হয়ে যাবে।

প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার

প্রাকৃতিক সমাধানের মাধ্যমে খুশকির সমস্যা কমানো সম্ভব। শ্যাম্পু করার আগে নারিকেল তেলের সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে মাথার ত্বকে ম্যাসাজ করলে আরাম পাওয়া যায়। এছাড়া অ্যান্টি ফাঙ্গাল গুণাগুণের কারণে টি ট্রি অয়েল ম্যাসাজ করলেও উপকার হবে।

স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস

ভিটামিন এবং মিনারেলসমৃদ্ধ একটি সুষম খাদ্যগুলো মাথার ত্বকের সুস্বাস্থ্যে অবদান রাখতে পারে। এ কারণে দৈনন্দিন খাবারে ফলমূল, শাকসবজি, চর্বিহীন প্রোটিনযুক্ত খাবার রাখুন।

চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া

কোনোভাবেই খুশকি দূর না হলে অবশ্যই চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের কাছে যেয়ে পরামর্শ নিতে হবে। কারণ একমাত্র চিকিৎসকই আপনার সমস্যা সঠিকভাবে শনাক্ত করে যথোপযুক্ত পরামর্শ দিতে পারেন।

About

Popular Links