Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

তথ্যমন্ত্রী: নির্বাচনে ভোট কম পড়েছে তিন কারণে

ভোটের দিন সাংবাদিকের ওপর হামলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘পেশাগত কাজে বাধা কোনভাবেই উচিৎ না। আমি শুনেছি বিএনপি’র কাউন্সিলর প্রার্থীর লোকেরা মেরেছে’

আপডেট : ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০১:৫৭ পিএম

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি’র ইভিএম-বিরোধী প্রচারণাসহ মোট তিনটি কারণে ভোট কম পড়েছে বলে মনে করেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

ঢাকা সিটি নির্বাচনের পরদিন রবিবার (২ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে তিনি বলেন, “টানা তিনদিন ছুটি থাকায় অনেকে গ্রামে চলে গেছে, ইভিএম নিয়ে বিএনপি’র বিরোধী প্রচারণায় মানুষের মধ্যে সংশয় তৈরি হয়েছে বলে ৮-১০ শতাংশ মানুষ ভোট দিতে আসেনি এবং বিএনপি বলেছে এই নির্বাচনকে তারা আন্দোলন হিসেবে নিয়েছে।”

“এসব কারণে ভোটে লোক কম এসেছে” উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, “তারপরও মোটামুটি ২৫ শতাংশ ভোট পড়েছে।”

প্রসঙ্গত, ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে শনিবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়রপ্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস (দক্ষিণ) ও আতিকুল ইসলাম (উত্তর) বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন।

তবে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ দুই সিটিতেই ৩০ শতাংশের নিচে ভোট পড়েছে। যার মধ্যে দক্ষিণে ২৯ শতাংশ এবং উত্তরে ২৫ শতাংশ ভোট পড়েছে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

এদিকে নির্বাচনে কারচুপিসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে রবিবার রাজধানীতে সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপি’র ডাকা হরতাল প্রসঙ্গে সাংবাদিকেদের প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, “হরতালের কোনও চিহ্ন নেই। ভোটের মাধ্যমে জনগণ বিএনপি’কে প্রত্যাখ্যান করেছে। হরতালও জনগণ প্রত্যাখ্যান করেছে।”

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, “নির্বাচন অতীতের চেয়ে অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ হয়েছে। কোথাও কেন্দ্র দখল হয়নি, কোথাও বড় ধরনের সংঘর্ষ হয়নি।”

ভোটের দিন সাংবাদিকের ওপর হামলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “পেশাগত কাজে বাধা কোনভাবেই উচিৎ না। আমি শুনেছি বিএনপি’র কাউন্সিলর প্রার্থীর লোকেরা মেরেছে। তবে বিষয়টি নিয়ে পুলিশ তদন্ত করছে।’

About

Popular Links