• রবিবার, এপ্রিল ০৫, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৪ রাত

ইভিএম’র বিরোধীতা করছে বাম জোট

  • প্রকাশিত ০৭:৩৩ রাত আগস্ট ২৯, ২০১৮
বাম গণতান্ত্রিক জোট
রাজধানীর পুরানা পল্টনে মুক্তিভবনের মৈত্রী মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন। ছবি: ইউএনবি

আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে এক-তৃতীয়াংশ ভোটকেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারের যে পরিকল্পনা নির্বাচন কমিশন (ইসি) নিয়েছে তার বিরোধিতা করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট।

আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে এক-তৃতীয়াংশ ভোটকেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারের যে পরিকল্পনা নির্বাচন কমিশন (ইসি) নিয়েছে তার বিরোধিতা করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট।

সেই সাথে জোটের পক্ষ থেকে নির্বাচনকালীন নির্দলীয় সরকার গঠন করার দাবি জানানো হয়েছে বলে সংবাদ প্রকাশ করেছে ইউএনবি।

বুধবার রাজধানীর পুরানা পল্টনে মুক্তিভবনের মৈত্রী মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে জোটের নেতারা এ দাবি জানান।

বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টি, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি), বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগ, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টি, গণসংহতি আন্দোলন, বাসদ (মার্কসবাদী) ও বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক আন্দোলন দলগুলোর সমন্বয়ে বাম গণতান্ত্রিক জোট গঠন করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে জোটের নেতারা জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে বর্তমান সরকারের পদত্যাগ, জাতীয় সংসদ ভেঙে দেয়া এবং নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন করার দাবি জানান।

সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, ‘আমরা নির্বাচলকালীন নিরপেক্ষ তদারকি সরকারের অধীনে একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন চাই। কারণ দেশের ইতিহাস বলে রাজনৈতিক সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়নি।’

নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার প্রতিষ্ঠার জন্য সংবিধান সংশোধন করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এটা করা না হলে দেশ গভীর সংকটে পড়বে।’

সরকার নির্বাচনের ফলে হস্তক্ষেপ করার জন্য ইসিকে দিয়ে এক-তৃতীয়াংশ ভোটকেন্দ্রে ইভিএম ব্যবহারের পরিকল্পনা করছে বলে অভিযোগ করেন সেলিম। ইভিএম ব্যবস্থা স্বচ্ছ নয় এবং অনেক রাজনৈতিক দলের কাছে বিষয়টির গ্রহণযোগ্যতা নেই জানিয়ে তিনি সরকারকে এ পরিকল্পনা ত্যাগ করার আহ্বান জানান।

বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক ও বিপ্লবী ওয়ার্কাস পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক তাদের দাবি আদায়ে সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর মাসে বিক্ষোভ, মতবিনিময় সভা ও সমাবেশের মতো নানা কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেন।