• বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:২৩ রাত

খালেদা জিয়াকে হত্যার চেষ্টা চলছে : ফখরুল

  • প্রকাশিত ১২:১৪ দুপুর সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৮
দলটিরবিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
দলটিরবিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ফাইল ছবি

বিএনপির মহাসচিব অবিলম্বে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে তার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করতে সরকারের প্রতি দাবি জানান।

সরকার দুর্নীতি মামলায় কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হত্যার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে আভিযোগ করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। 

আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন ফখরুল।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘তার (খালেদা জিয়া) কোনো চিকিৎসা হচ্ছে না। আমরা অত্যন্ত উদ্বিগ্ন তার স্বাস্থ্য নিয়ে। রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে মিথ্যা সাজানো মামলায় শাস্তি দিয়ে কারাগারে বেআইনিভাবে আটক রেখে তাকে হত্যা করার হীন প্রচেষ্টা চালাচ্ছে সরকার।’

‘গতকাল বিকেলে দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার পরিবারের সদস্যরা সাক্ষাৎ করেছেন। তারা জানিয়েছেন, দেশনেত্রী অত্যন্ত অসুস্থ। তার বাঁ হাত ও বাঁ পা প্রায় অবশ হয়ে গেছে। অসহ্য ব্যথা অনুভব করছেন তিনি। একই কথা তিনি বলেছেন ৫ তারিখে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তরিত বেআইনি আদালতকক্ষে।’

মির্জা ফখরুল আরও বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে রাজনীতি এবং আসন্ন নির্বাচন থেকে দূরে রেখে একতরফা নির্বাচনে নিজেদের বিজয়ী ঘোষণা করবার নীলনকশা নিয়েই এগোচ্ছে সরকার। বর্তমান সরকার এতটাই নিচে নেমে গেছে যে একজন মারাত্মকভাবে অসুস্থ সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে তারা চিকিৎসার কোনো সুযোগ দিচ্ছে না। অথচ চিকিৎসা পাওয়া তার সাংবিধানিক অধিকার।’

এ সময় বিএনপির মহাসচিব অবিলম্বে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে তার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করতে সরকারের প্রতি দাবি জানান। 

বিএনপির শীর্ষ এই নেতা বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে পরীক্ষা করে চিকিৎসকরা বলেছেন, তিনি মারাত্মকভাবে অসুস্থ। অবিলম্বে বিশেষায়িত হাসপাতালে স্থানান্তর করে তাকে চিকিৎসা দেওয়া তার জীবন রক্ষার জন্য অতি প্রয়োজন। সরকার কোনো কথার কর্ণপাত না করে শুধু রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্য চিকিৎসা না দিয়ে পরিত্যক্ত নির্জন কারাগারে স্যাঁতসেঁতে অস্বাস্থ্যকর কক্ষে আবদ্ধ করে রেখেছে। একজন সাধারণ বন্দির সঙ্গেও এ ধরনের আচরণ করা হয় না। খালেদা জিয়ার অবদান যারা অস্বীকার করতে চান, তারা কেউই গণতন্ত্রে বিশ্বাস করেন বলে আমরা মনে করি না।’

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত। সেদিনই তাকে রাজধানীর নাজিম উদ্দিন সড়কের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নেওয়া হয়।