• বুধবার, নভেম্বর ১৪, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:১৫ রাত

প্রধানমন্ত্রী: আওয়ামী লীগ রাজনৈতিক জোট নিয়ে কখনো চিন্তিত নয়

  • প্রকাশিত ০৬:৫৩ সন্ধ্যা অক্টোবর ২২, ২০১৮
pm
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সোমবার (২২ অক্টোবর, ২০১৮) গণভবনে সৌদি আরব সফর পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন। ছবি- ফোকাস বাংলা

“অনেকেই (জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের) আওয়ামী লীগে ছিলেন, এখন আওয়ামী লীগ থেকে চলে গেছেন। রাজনীতিতে সকলেরই স্বাধীনভাবে রাজনীতি করার অধিকার আছে।”

রাজনৈতিক জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের গঠনকে স্বাগত জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তার দল আওয়ামী লীগ এই জোটের বিষয়ে কখনো চিন্তিত নয়।

সোমবার (২২ অক্টোবর) নিজের সরকারি বাসভবন গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, “আমরা চাই তারা ভালো কাজ করবেন। আওয়ামী লীগ কখনো এটি নিয়ে চিন্তিত নয়। বরং এটা ভালো যে তারা ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন।”

সৌদি বাদশা ও পবিত্র দুই মসজিদের খাদেম সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের আমন্ত্রণে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত সৌদি আরব সফর নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। 

সৌদি বাদশা ও পবিত্র দুই মসজিদের খাদেম সালমানের আমন্ত্রণে গত মঙ্গলবার চার দিনের দ্বিপাক্ষিক সফরে সৌদি আরব যান শেখ হাসিনা। সফরকালে তিনি বুধবার রিয়াদে সৌদি বাদশা সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ ও সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান বিন আবদুল আজিজের সাথে পৃথক বৈঠক করেন।

সংবাদ সম্মেলনে শেখ হাসিনা বলেন, “আমি স্বাগত জানাই যে রাজনৈতিক দলগুলো ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। এটা প্রয়োজন ছিল। আমি মনে করি, যদি সবাই ঐক্যবদ্ধ হতে পারেন এবং রাজনৈতিক সফলতা অর্জন করেন, তাহলে সমস্যা কোথায়?”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে রাজনৈতিক স্বাধীনতা আছে, কথা বলার স্বাধীনতা আছে, সাংবাদিকতার স্বাধীনতা আছে। বিচার বিভাগের স্বাধীনতা আছে। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলও এক হয়েছে, সেটাকে আমরা স্বাগত জানাই।

তিনি বলেন, তারা (জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতারা) সেখানে যুক্ত হয়েছেন, তারা কেমন, মেয়েদের প্রতি কেমন মনোভাব তাদের, সেটাও সবাই দেখেছেন। এখানে স্বাধীনতাবিরোধী, জঙ্গিবাদ ও দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়নরাও রয়েছে। সবাই মিলে এক জায়গায় হয়েছে। এটাকে বাংলাদেশের মানুষ কীভাবে দেখেন সেটাই বিষয়।

তিনি বলেন, “অনেকেই (জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের) আওয়ামী লীগে ছিলেন, এখন আওয়ামী লীগ থেকে চলে গেছেন। রাজনীতিতে সকলেরই স্বাধীনভাবে রাজনীতি করার অধিকার আছে।”

প্রধানমন্ত্রী বুধবার রিয়াদে কাউন্সিল অব সৌদি চেম্বার এবং রিয়াদ চেম্বার অব কমার্সের নেতৃবৃন্দসহ সৌদি ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের সাথে এক সভায় যোগ দেন। অনুষ্ঠানে পাঁচটি সমঝোতা স্মারক সাক্ষর করা হয়।

শেখ হাসিনা বুধবার রিয়াদের কূটনৈতিক এলাকায় নিজস্ব ভূমিতে নির্মিত বাংলাদেশ দূতাবাসের চ্যান্সরি ভবন উদ্বোধন এবং বৃহস্পতিবার জেদ্দায় বাংলাদেশ কনস্যুলেটের চ্যান্সরি ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

সফর শেষে শুক্রবার দিবাগত রাতে দেশে ফেরেন প্রধানমন্ত্রী।