• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৪ রাত

সিলেটে নাহিদের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাসেবক লীগের বিক্ষোভ

  • প্রকাশিত ১২:০৭ দুপুর ডিসেম্বর ৩, ২০১৮
শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ
শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন (ফাইল ছবি)।

স্থানীয় আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা এই আসনে নুরুল ইসলাম নাহিদ ছাড়া অন্য যে কাউকে মনোনয়ন দেওয়ার দাবী করে আসছিলেন

সিলেটে সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল বের করেছে স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা কর্মীরা। রবিবার (২ নভেম্বর) দুপুরে সিলেটের বিয়ানীবাজার এলাকায় এই বিক্ষোভ মিছিল করা হয় বলে বাংলা ট্রিবিউনের একটি খবরে বলা হয়েছে।

জানা যায়, সেচ্ছাসেবকলীগসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা এই আসনে নুরুল ইসলাম নাহিদ ছাড়া অন্য যে কাউকে মনোনয়ন দেওয়ার   দীর্ঘদিন ধরে দাবী করে আসছিলেন। এছাড়াও, সিলেট ৬ আসনে থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আবুল কাশেম পল্লব। এসবের প্রেক্ষিতে এই বিক্ষোভ মিছিল করা হয়।

তবে, মিছিল চলাকালে নির্বাচণি আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগে মিছিলে বাঁধা দেয় পুলিশ। এসময় পুলিশের সঙ্গে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীদের ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে। এরপর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ।

বিয়ানীবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অবণী শংকর কর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, “অনুমতি ছাড়া আমরা তাদের মিছিল করতে নিষেধ করি। এ ধরণের মিছিল-শোডাউন নির্বাচনি আচরণবিধির লঙ্ঘন”।

এদিকে স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আবুল কাশেম পল্লব এই বিষয়ে জানান, “বিজয়ের মাসে আমরা বিক্ষোভ মিছিল ও সভা করার প্রস্তুতি নেই। শনিবার এ কর্মসূচির প্রচারণার সময় পুলিশ আমাদের মাইক জব্দ করে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে রবিবার দুপুরে আমরা পৌরশহরের দক্ষিণ বাজার মিছিল শুরু করি। মিছিলটি পৌরশহর প্রদক্ষিণ করার সময় পুলিশ কয়েক দফা নির্বাচনি আচরণের দোহাই দিয়ে আমাদের বাঁধা দেয়। পরে আমরা সমাবেশ করতে চাইলেও পুলিশ বাঁধা দিয়ে আমাদের মাইকের সংযোগ ছিঁড়ে ফেলে এবং লাঠিচার্জ করে দলীয় কর্মীদের আহত করে। এ সময় স্বেচ্ছাসেবক লীগের কর্মী সুমন আহমদসহ ৪ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন”।