• বৃহস্পতিবার, জুন ২৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৬ সকাল

টাকার অভাবে বন্ধের পথে এরশাদের প্রচারণা!

  • প্রকাশিত ১০:৫৪ রাত ডিসেম্বর ১৮, ২০১৮
এরশাদ
ছবি : সংগৃহীত

রংপুর সদর আসনে এরশাদ ছাড়া আওয়ামী লীগের কোনো প্রার্থী নেই। ফলে মহানগরীর আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীরা অলস সময় কাটাচ্ছেন।

অর্থের অভাবে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এবং রংপুর-৩ আসনের প্রার্থী এইচ এম এরশাদের নির্বাচনী প্রচারণা বন্ধের উপক্রম হয়েছে বলে জানা গেছে। বিষয়টি জাতীয় পার্টির রংপুর মহানগরের শীর্ষ নেতারা স্বীকার করেছেন। আর এ ঘটনায় তৃণমুল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মধ্যে হতাশার সৃষ্টি হয়েছে । 

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, রংপুর-৩ আসনের মহাজোট প্রার্থী এরশাদ চিকিৎসার জন্য বর্তমানে সিঙ্গাপুরে অবস্থান করছেন। তিনি মনোনয়ন পত্র দাখিল করতেও রংপুরে আসেননি। এমনকি মনোনয়নপত্র বাছাই এবং প্রতীক বরাদ্দসহ কোনো কর্মকাণ্ডে অংশ নেননি তিনি। এ ছাড়াও নির্বাচনী প্রচারণা কিংবা গণসংযোগ করতেও আসতে পারেননি তিনি। 

মূলত নির্বাচনী তফশীল ঘোষণার পর পরই তিনি অসুস্থ হয়ে বেশ কিছুদিন ভর্তি ছিলেন ঢাকায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে। এরপর তিনি উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে যান। 

এদিকে এরশাদের অনুপস্থিতিতে রংপুর সিটি মেয়র ও মহানগর জাপা সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা ও সাধারণ সম্পাদক এস এম ইয়াসিরের নেতৃত্বে দলের নেতাকর্মীরা দুই দিন নগরীর বিভিন্ন স্থানে ভোটারদের মধ্যে লিফলেট বিতরণ করেন। পাশাপাশি নগরীতে স্বল্প পরিসরে তিন-চারটি ইজিবাইকে মাইকের মাধ্যমে প্রচারণা চালানো হয়। কিন্তু তার পরেও রংপুর সিটি করপোরেশনের ২৫টি ওয়ার্ড এবং তিনটি ইউনিয়নে এখনো এরশাদের পক্ষে দৃশ্যমান তেমন কোনো প্রচারণা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। এমনকি অনেক এলাকায় এখনো পোস্টার পর্যন্ত টাঙানো হয়নি। 

এদিকে রংপুর সদর আসনে এরশাদ ছাড়া আওয়ামী লীগের কোনো প্রার্থী নেই। ফলে মহানগরীর আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীরা অলস সময় কাটাচ্ছেন।

মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তুষার কান্তি মণ্ডলের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘রংপুর-৩ আসনে মহাজোটের প্রার্থী এরশাদ। আমরাও চাই তার পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিতে। কিন্তু জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে সাড়া পাওয়া যায়নি। তার পরেও আমরা মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে এরশাদের পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছি। অচিরেই আমরা পুরোদমে প্রচারণায় অংশ নেব।’ 

এদিকে জাতীয় পার্টির মহানগরের এক শীর্ষ নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, ‘মূলত আর্থিক সংকটের কারণে আমরা নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে পারছি না। এর আগের নির্বাচনে এরশাদ নিজেই এসব বিষয় দেখভাল করতেন। কিন্তু তিনি সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন থাকায় আমরা বিপাকে পড়েছি। আর্থিক সংকটের বিষয়টি এরশাদকে জানানো হয়েছে।’

এ বিষয়ে জানতে রংপুর মহানগর জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এস এম ইয়াসিরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি আর্থিক সংকটের কারণে প্রচারণাসহ সব ধরনের কর্মকাণ্ডে স্থবিরতার কথা স্বীকার করেন। তিনি বলেন, সিঙ্গাপুরে চিকিৎসাধীন এরশাদকে এ বিষয়ে জানানো হয়েছে। দলের মহাসচিব মশিয়ার রহমান রাঙ্গাকেও বলা হয়েছে। তিনি নিজেও রংপুর-১ আসনের প্রার্থী। তাই তাকেও প্রচারণা নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হচ্ছে। তার পরেও আশা করা যাচ্ছে খুব দ্রুত এরশাদ এবং মহাসচিব রাঙ্গা এ সমস্যার সমাধান করবেন।