• বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ২৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৪২ রাত

জামায়াতের ভোট বর্জন

  • প্রকাশিত ০৩:৩৭ বিকেল ডিসেম্বর ৩০, ২০১৮
sds

২০১৩ সালের ১ আগস্ট জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন বাতিল করে হাইকোর্ট। চলতি বছরের ২৯ অক্টোবর দলটির নিবন্ধন বাতিলের চূড়ান্ত ঘোষণা দেয় নির্বাচন কমিশন।

একাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নেতারা 'ব্যাপক ভোট কারচুপির' অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জন করেছেন। 

আজ রোববার এক বিবৃতিতে নির্বাচন বর্জনের কথা জানায় জামায়াতে ইসলামী। 

জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল ড. শফিকুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ধানের শীষ প্রতীকে ঐক্যফ্রন্টের হয়ে অংশ নেওয়া দলের ২২ নেতা ও স্বতন্ত্রভাবে অংশ নেওয়া চার নেতা ভোট বর্জন করেছেন। 

জামায়াতের এই নেতা আরও বলেন, নির্বাচনের দিন সরকার ভোটার ও সাধারণ মানুষের ওপর হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। এতে মানুষের জীবন ঝুঁকিতে পড়েছে। সব জায়গায় ক্ষমতাসীন দলের ক্যাডারদের সশস্ত্র শোডাউন করতে দেখা যাচ্ছে। মানুষের জীবনের কোনো নিরাপত্তা নেই, তাই ভোটাধিকার প্রয়োগ সম্ভব না।   

শফিকুর রহমান বলেন, এমন একপেশে নির্বাচন কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। এ কারণেই ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচনে অংশ নেওয়া জামায়াতের নেতারা ভোট বর্জন করেছেন।  

তিনি আরও অভিযোগ করেন, দেশে ও বিদেশে সবাই বুঝেছে এই নির্বাচন সরকারের পরিকল্পনা অনুযায়ী চলছে। এটা কোনো নির্বাচন না, বরং বাংলাদেশের মানুষের সঙ্গে প্রহসন ও প্রতারণা।  

২০১৩ সালের ১ আগস্ট জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন বাতিল করে হাইকোর্ট। চলতি বছরের ২৯ অক্টোবর দলটির নিবন্ধন বাতিলের চূড়ান্ত ঘোষণা দেয় নির্বাচন কমিশন।