• বুধবার, অক্টোবর ১৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৭:০৫ রাত

গণফোরাম: শপথ নিলে মনসুর, মোকাব্বিরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

  • প্রকাশিত ১১:৩২ সকাল মার্চ ৪, ২০১৯
গণফোরামের দুই সংসদ সদস্য সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ ও মোকাব্বির খান
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গণফোরামের নির্বাচিত দুই প্রার্থী সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ ও মোকাব্বির খান। ছবি: ইউএনবি

রবিবার গণফোরামের আরামবাগের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মোহসিন মন্টু এ হুঁশিয়ারি দেন

দলের সিদ্ধান্ত অমান্য করে সংসদ সদস্য সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ (মৌলভীবাজার-২) ও মোকাব্বির খান (সিলেট-২) শপথ নিলে সাংগঠনিক ও আইনী ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে গণফোরাম। 

রবিবার গণফোরামের আরামবাগের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মোহসিন মন্টু এ হুঁশিয়ারি দেন বলে ইউএনবির একটি খবরে বলা হয়েছে। 

তিনি বলেন, "সংসদে যোগ না দেয়া আমাদের দলের সিদ্ধান্ত এবং এব্যাপারে কোনো মতানৈক্য নেই। এরপরও তারা এটা করলে সেটা তাদের নিজের সিদ্ধান্ত, দলের নয়"।

মন্টু আরও বলেন, "তারা শপথ নিলে আমরা নিশ্চতভাবেই আইন মোতাবেক ব্যবস্থা নেব। আমরা দলীয় বৈঠক করবো তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ও আইনী ব্যবস্থা নেব"।

এর আগে শনিবার স্পিকারের কাছে পাঠানো এক চিঠিতে গণফোরামের দুই এমপি আগামী ৭ মার্চ শপথ অনুষ্ঠান আয়োজনের অনুরোধ জানান।

উল্লেখ্য, গত ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্লাটফর্মে বিএনপির নির্বাচনী প্রতীক ‘ধানের শীষ’ নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয়ী হন গণফোরামের মনসুর। অন্যদিকে মোকাব্বির খান সিলেট-২ আসন থেকে গণফোরামের প্রতীক ‘উদীয়মান সূর্য’ নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয়ী হন।

বিএনপি ও গণফোরামসহ আরও কয়েকটি দল জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ব্যানারে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়। নির্বাচনে বিএনপি ছয়টি আসনে এবং গণফোরাম দুটি আসনে বিজয়ী হয়।

তবে ‘ব্যাপক ভোট ডাকাতির’ অভিযোগ এনে জোট নির্বাচনের ফলাফল বর্জন করে নতুন নির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসছে।

ঐক্যফ্রন্টের আট এমপির অংশগ্রহণ ছাড়াই গত ৩০ জানুয়ারি নতুন সংসদের প্রথম অধিবেশন শুরু হয়।