• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:২৮ সকাল

ফখরুল: ঠিকমতো খেতে পারছেন না খালেদা জিয়া

  • প্রকাশিত ১০:৩১ রাত মার্চ ১৯, ২০১৯
নোয়াখালী যাওয়ার পথে কুমিল্লার একটি রেস্টেুরেন্টে যাত্রা বিরতিকালে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মির্জা ফখরুল। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন
নোয়াখালী যাওয়ার পথে কুমিল্লার একটি রেস্টেুরেন্টে যাত্রা বিরতিকালে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মির্জা ফখরুল। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন

ফখরুল বলেন, আদালতে আসার আগে খালেদা জিয়া বমি করেছেন। তিনি এখন কিছু খেতে পারেন না। তাকে কোনও চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না।

বিএনপি চেয়ারপার্সনের শারীরিক অবস্থার মারাত্মক অবনতি হয়েছে দাবি করে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মঙ্গলবার বলেছেন, তিনি (খালেদা) ঠিকমতো কোনও কিছু খেতেও পারছেন না, এমনকি মাথা সোজা করেও রাখতে পারছেন না।

বার্তা সংস্থা ইউএনবি জানায়, পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারের অভ্যন্তরে স্থাপিত অস্থায়ী আদালতে খালেদা জিয়ার সাথে কথা বলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘এখানে (আদালতে) আসার আগে তিনি বমি করেছেন। তিনি এখন কিছু খেতে পারেন না। তাকে কোনও চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না।’’

বিএনপি নেতা আরও বলেন, ‘‘তিনি আমাকে বলেছেন তিনি খুবই অসুস্থ এবং তাকে কোনও চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না। তার শারীরিক অবস্থার মারাত্মক অবনতি হয়েছে। কিন্তু কোনো চিকিৎসক এখনো তাকে দেখতে আসেনি। পরীক্ষার জন্য তার রক্তের নমুনা সংগ্রহ করা হয়নি।’’

ফখরুল বলেন, বিএনপি চায় সরকার যেন দ্রুত বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের মাধ্যমে খালেদা জিয়ার মেডিকেল পরীক্ষা এবং চিকিৎসা নিশ্চিত করে। ‘‘খালেদা জিয়া মাথা সোজা রাখতে পারছিলেন না। পায়ে, হাঁটু এবং শরীরের অন্যান্য অংশে অসহ্য যন্ত্রণায় ভুগছেন তিনি।’’

চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে খালেদা জিয়ার না আসতে চাওয়া প্রসঙ্গে ফখরুল বলেন, সেখানে তিনি যথাযথ চিকিৎসা পান না।

বিএনপি মহাসচিব অভিযোগ করেন বলেন, তারা বিশেষায়িত বেসরকারি হাসপাতালে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে সরকারকে আহ্বান জানালেও সরকার এখনো এ বিষয়ে কোনও পদক্ষেপ নেয়নি।

তার পরামর্শ, সরকার খালেদা জিয়ার চিকিৎসা এবং রক্ত ও অন্যান্য পরীক্ষার জন্য কারাগারে মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসক পাঠাতে পারে।

নাইকো দুর্নীতি মামলার শুনানিতে দুপুর ১২টা ৪০ মিনিটে হুইলচেয়ারে করে খালেদা জিয়াকে আদালতে আনা হয়।

ফখরুল খালেদা জিয়ার পাশে বসেন এবং ৪০ মিনিট ধরে চলা শুনানিতে খালেদা জিয়ার সঙ্গে তাকে কথা বলতে দেখা যায়।