• বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৪:০০ বিকেল

ড. কামাল গণফোরামের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক রেজা কিবরিয়া

  • প্রকাশিত ০৬:৩০ সন্ধ্যা মে ৫, ২০১৯
গণফোরামের সংবাদ সম্মেলন
রবিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করেছে গণফোরাম। ছবি: ফোকাস বাংলা।

গত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মোহসীন মন্টুকে কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির এক নম্বর সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে

১১১ সদস্য বিশিষ্ট কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করেছে গণফোরাম। কেন্দ্রীয় কমিটিতে ড. কামাল হোসেনকে সভাপতি এবং ড. রেজা কিবরিয়াকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়েছে। রবিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকট সুব্রত চৌধুরী এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এই কমিটি ঘোষণা করেন। 

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে দলে যোগ দেওয়া নতুন সদস্যদের বেশ কয়েকজন নতুন এই কমিটিতে স্থান পেয়েছেন। দলটির নবনির্বাচিত সধারণ সম্পাদক রেজা কিবরিয়াও নির্বাচনের আগে গণফোরামে যোগ দিয়েছিলেন।

দলটির নতুন কমিটিতে নির্বাহী সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন অধ্যাপক ড. আবু সাইয়িদ এবং অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী। এছাড়াও সভাপতি পরিষদে আছেন অ্যাডভোকেট এ এইচ এম খালেকুজ্জামান, অ্যাডভোকেট আব্দুল আজিজ, মফিজুল ইসলাম খান কামাল, মোকাব্বির খান, আমসা আমিন, অ্যাডভোকেট জগলুল হায়দার আফ্রিক, অ্যাডভোকেট মহসিন ঘোষ, অ্যাডভোকেট শফিক উল্লাহ, মেসবাহ উদ্দীন আহমেদ ও অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ জানে আলম।

তবে গত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মোহসীন মন্টুকে এইবার কোনো পদে রাখা হয়নি। তাকে দলের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির এক নম্বর সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে।

এদিকে সংবাদ সম্মেলনে দলটির নতুন কমিটির কোষাধ্যক্ষ, তথ্য ও গণমাধ্যম সম্পাদক, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদকের নাম ঘোষণা করা হয়নি। এসব পদে নির্বাচিতদের নাম পরবর্তীতে প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন অ্যাডভোকট সুব্রত চৌধুরী।

সংবাদ সম্মেলনে ড. কামাল হোসেন বলেন, "দেশের মালিক জনগণ। তারাই দেশের মালিকানা ছিনিয়ে নেবে। স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়তে ঝুঁকি নিতেই হবে। জনগণকে নিষ্ক্রিয় থাকলে চলবে না। মাঠে নামতে হবে। দেশে সুশাসন অনুপস্থিত। দেশ আজ সংকটে আছে"।

গণফোরামের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক রেজা কিবরিয়া বলেন, "সাধারণ মানুষ সন্তানের মুখে দু’বেলা খাবার তুলে দিতে না পারলে উন্নয়ন কিংবা প্রবৃদ্ধির কোনো অর্থ হয় না"।

বিএনপি থেকে নির্বাচিত ৫ সংসদ সদস্যের শপথ গ্রহণের বিষয়ে তিনি বলেন, "পাঁচ জন সংসদে ঢুকলেই যে সংসদ বৈধতা পাবে, এটি ভুল ধারণা"।