• রবিবার, অক্টোবর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:০৬ দুপুর

মধুর ক্যান্টিনে সংঘর্ষের ঘটনায় পাঁচজনকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার

  • প্রকাশিত ০৯:৩৪ রাত মে ২০, ২০১৯
ছাত্রলীগ
পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে ছাত্রলীগের দু'টি বিবাদমান পক্ষ। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে সংঘর্ষের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংগঠনটি।

ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে সংঘর্ষের ঘটনায় পাঁচজনকে বহিষ্কার করেছে সংগঠনটি।

তাদের মধ্যে একজনকে স্থায়ী ও বাকি চারজনকে অস্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের এক জরুরি সিদ্ধান্তে তাদের বিরুদ্ধে বহিষ্কারাদেশের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে সোমবার (২০ ডিসেম্বর) এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে সংগঠনটি।

গত ১৩ মে ইফতার পরবর্তী সময়ে মধুর ক্যান্টিনে সংঘর্ষের ঘটনায় ওইদিনই গঠিত তিন সদস্যের তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।

কেন্দ্রীয় কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ছাত্রলীগ থেকে আজীবন বহিষ্কৃত হয়েছেন জিয়া হল শাখা ছাত্রলীগের কর্মী সালমান সাদিক।

সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে কোনো সময়সীমার উল্লেখ না করে সাময়িক বহিষ্কারাদেশ দেওয়া হয়েছে- গাজী মুরসালিন অনু (সাধারণ সম্পাদক, বিজ্ঞান অনুষদ ছাত্রলীগ), সাজ্জাদুল কবির (কর্মী, জিয়া হল ছাত্রলীগ), জারিন দিয়া (সাবেক সদস্য, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ) এবং কাজী সিয়াম (সদস্য, জিয়া হল ছাত্রলীগ)-কে।

এছাড়া, একই বিজ্ঞপ্তিতে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে রোকেয়া হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি বি.এম লিপি আক্তার এবং জিয়া হল শাখা ছাত্রলীগের পরিকল্পনা ও কর্মসূচি বিষয়ক সম্পাদক হাসিবুর রহমান শান্তকে আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, সম্মেলনের প্রায় এক বছর পর গত ১৩ মে বিকেলে ৩০১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার পর ওইদিন সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যানটিনে পদবঞ্চিতরা সংবাদ সম্মেলন করতে গেলে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে আহত হন বেশ কয়েকজন।