• রবিবার, আগস্ট ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩৭ রাত

তথ্যমন্ত্রী: গণপিটুনির ঘটনায় গ্রেফতার ৭০ শতাংশই বিএনপি-জামায়াতের

  • প্রকাশিত ০৮:১৪ রাত জুলাই ২৫, ২০১৯
তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ
তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। ফাইল ছবি

'তারা গুজব ছড়াচ্ছে যে পদ্মা সেতু নির্মাণ করতে এক লাখ শিশুর বলি প্রয়োজন'

পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির লক্ষ্যে সম্প্রতি শিশু অপহরণের গুজব ছড়িয়ে বিভিন্ন নিরীহ মানুষকে গণপিটুনির ঘটনায় গ্রেফতার ব্যক্তিদের ৭০ শতাংশই বিএনপি-জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ন্যাপ (ভাসানী)’র ৬২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বক্তব্য প্রদানকালে তিনি একথা বলেন বলে সংবাদ সংস্থা বাসসের একটি প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। 

মন্ত্রী বলেন, "ছেলেধরার এই গুজব অত্যন্ত জঘন্য ও বিপজ্জনক। গণপিটুনির প্রতিটি ঘটনাই একেকটি হত্যাকাণ্ড। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা এই গণপিটুনির সঙ্গে জড়িত কয়েকজন দুষ্কৃতিকারীকে গ্রেফতার করেছেন। গ্রেফতারকৃত অপরাধীদের ৭০ শতাংশই বিএনপি-জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।"

ড. হাছান আরও বলেন, "বাংলাদেশ এখন উন্নয়ন মহাসড়কে রয়েছে। বিশ্ব নেতৃবৃন্দ ও বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের এই ব্যাপক উন্নয়ন ও পদ্মা সেতু নির্মাণের প্রশংসা করছে। কিন্তু পরাজিত ও কুচক্রী এই মহলটি উন্নয়ন দেখে ঈর্ষান্বিত হয়ে পড়েছে।"

"জনগণ তাদের প্রত্যাখ্যান করায় এই স্বার্থান্বেষী মহলটি এখন বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। তারা গুজব ছড়াচ্ছে যে পদ্মা সেতু নির্মাণ করতে এক লাখ শিশুর বলি প্রয়োজন", দাবি করেন তথ্যমন্ত্রী।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, "দুষ্কৃতিকারীদের ছাড়াও এই ধরণের গুজব যারা ছড়াচ্ছে, সেইসব মূল হোতাদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।"

এসময় গুজব প্রতিরোধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে মুক্তিযুদ্ধের আদর্শে অনুপ্রাণিত হওয়ার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান ড. হাছান মাহমুদ। 

ন্যাপ (ভাসানী)’র চেয়ারম্যান এম এ ভাসানীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নগর আওয়ামী লীগের দক্ষিণ শাখার সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ ও সাবেক আইনপ্রণেতা নাজমুল হক প্রধান।