• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৪৭ সকাল

কাদের: বসন্তের কোকিলদের দলে আনা যাবে না

  • প্রকাশিত ০৬:২৮ সন্ধ্যা অক্টোবর ৩০, ২০১৯
ওবায়দুল কাদের
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

কাদের বলেন, 'অপরাধীদের দমন করতে নিজের ঘর থেকে শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছেন প্রধানমন্ত্রী। অপরাধীরা কোনোভাবে ছাড় পাবে না।'

সুবিধাভোগী ও বসন্তের কোকিলদের দলে আনা যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, “ভোলার বোরহানউদ্দিনে জনতা-পুলিশ সংঘর্ষের ঘটনায় কাউকে ছাড় দেওয়া হয়নি। নুসরাত হত্যা মামলায় ফেনীর আওয়ামী লীগ সভাপতিও ছাড় পায়নি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের ঘরে পর্যন্ত অভিযান চালাচ্ছেন। যেখানে টেন্ডারবাজি-চাঁদাবাজি-সন্ত্রাসী, সেখানেই শেখ হাসিনার শুদ্ধি অভিযান। সুবিধাভোগী ও বসন্তের কোকিলদের দলে আনা যাবে না। সময়মতো পাঁচ হাজার ভোল্টের বাতি দিয়েও তাদের খুঁজে পাওয়া যাবে না।”

বুধবার (৩০ অক্টোবর) ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার চরফ্যাশন ঈদগাহ মাঠে সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত চরফ্যাশন-বেতুয়া সড়ক উদ্বোধন শেষে তিনি ওই সমাবেশে বক্তব্য রাখেন।

কাদের বলেন, “অপরাধীদের দমন করতে নিজের ঘর থেকে শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছেন প্রধানমন্ত্রী। অপরাধীরা কোনোভাবে ছাড় পাবে না। একটি অপরাধ ১০টি উন্নয়নকে ম্লান করে দেয়।"

বিএনপি এখন জাতীয় নালিশ পার্টি হিসেবে জনগণের কাছে পরিচিতি লাভ করেছে মন্তব্য করে তিনি আরও বলেন, “আন্দোলনের কোনও ইস্যুতে সফল না হয়ে তারা নালিশ দায়ের করে চলেছে। বুয়েটের আবরার হত্যা মামলা ভিন্নখাতে প্রবাহের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে।"

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “১৯৭৫ সালে মাত্র ১৮ জন লোক যখন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের লাশ দাফন করেন, তখন অনেকে বলেছিলেন—জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দলকে শেষ করা হয়েছে। সেই দল আজ বাংলাদেশের ইতিহাসে এক উন্নয়নের ইতিহাস রচনা করেছে।”

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, “আপনারা মানুষের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করবেন। নিজেদের পকেট ভরতে চেষ্টা না করে উন্নয়নের পথে এগিয়ে আসুন।”

সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকবের সভাপতিত্বে সমাবেশে ছিলেন সড়ক ও জনপথের অতিরিক্ত সচিব শিশির কুমার মজুমদার, জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম ছিদ্দিক, পুলিশ সুপার শেখ কায়সার আহম্মেদ, উপজেলা চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন আখন প্রমুখ।