• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৫৬ সকাল

কাদের: খালেদাকে দেশের বাইরে পাঠানোর মতো অবস্থা হয়নি

  • প্রকাশিত ০৬:২৯ সন্ধ্যা নভেম্বর ২, ২০১৯
ওবায়দুল কাদের
শনিবার নারায়ণগঞ্জে বিআরটিএ আয়োজিত ‘সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ প্রতিপালন’ কর্মসূচি পরিদর্শন করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ঢাকা ট্রিবিউন

'খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুবই মানবিক'

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে পাঠানোর মতো অবস্থা তৈরি হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। শনিবার (২ নভেম্বর) নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বিআরটিএ আয়োজিত ‘সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ প্রতিপালন’ কর্মসূচি পরিদর্শনে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, "খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে চিকিৎসকদের বক্তব্যের সাথে বিএনপি'র বক্তব্যের কোনো মিল নেই। তাদের পছন্দের চিকিৎসক নিয়ে গঠিত মেডিকেল বোর্ড বলছে চিকিৎসায় কোনো সংকট নেই। তার (খালেদা) স্বাস্থ্য ভালো আছে। দেশের বাইরে পাঠানোর মতো কোনো অবস্থা তার হয়নি।"

"বিএনপি বিষয়টি নিয়ে যেভাবে রাজনৈতিক ফায়দা লুটার চেষ্টা করছে সেটা বাস্তবে কতটুকু সত্য? খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুবই মানবিক। বিএনপি তাদের নেত্রীকে বিদেশে পাঠানোর কথা বলছে কিন্তু তার চিকিৎসকরা সেকথা বলছেন না", যোগ করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

এসময় ১ নভেম্বর থেকে চালু হওয়া সড়ক পরিবহন আইন প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, "যেহেতু আইনটি নতুন পাশ করা হয়েছে তাই অনেকেই এর বিষয়গুলো সম্পর্কে অবগত নন। পরিবহন মালিক, শ্রমিক ও হাইওয়ে পুলিশসহ সর্বস্তরে বিষয়গুলো জানিয়েছি। প্রথম এক সপ্তাহ সতর্কতামূলক পদক্ষেপ নেব। শুরুতেই কেউ ভুল করে আইন অমান্য করলে জেল-জরিমানা আদায় করছি না। কিছুদিন সময় দিয়ে পরে পুরোপুরিভাবে এ আইন প্রয়োগ করা হবে। এখন প্রচারণায় সতর্কতা বিষয়ে মূলত প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে।"

এর আগে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বিআরটিএদর ভ্রাম্যমান আদালতের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করেন এবং নিজেও বিভিন্ন পরিবহন চালক ও যাত্রীদের হাতে হাতে সচেতনতামূলক লিফলেট তুলে দেন। এসময় মন্ত্রীর সাথে উপস্থিত ছিলেন বিআরটিএদর চেয়ারম্যান ড. আহসানুল করিম, পুলিশের অতিরিক্ত আইজি ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান, নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন-অর-রশিদ, সদর উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা নাহিদা বারিকসহ বিআরটিএ'র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।