• শুক্রবার, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৬:৫১ সন্ধ্যা

শহীদ নূর হোসেনকে ‘ইয়াবাখোর’ বললেন রাঙ্গা

  • প্রকাশিত ০৮:১৯ রাত নভেম্বর ১০, ২০১৯
মশিউর রহমান রাঙ্গা
জাতীর পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা। ছবি: সৌজন্যে।

'নূর হোসেন কে? একটা অ্যাডিকটেড ছেলে। একটা ইয়াবাখোর, ফেন্সিডিলখোর।'

শহীদ নূর হোসেনকে "ইয়াবাখোর" হিসেবে অভিহিত করেছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা। রবিবার (১০ নভেম্বর) বনানীতে জাপা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে গণতন্ত্র দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এই মন্তব্য করেন বলে বাংলা ট্রিবিউনের একটি খবরে বলা হয়।

জাপা মহাসচিব বলেন, "হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ কাকে হত্যা করলেন, নূর হোসেনকে? নূর হোসেন কে? একটা অ্যাডিকটেড ছেলে। একটা ইয়াবাখোর, ফেন্সিডিলখোর।"

"নূর হোসেনকে নিয়ে গণতান্ত্রিক দুই দল, আওয়ামী লীগ এবং বিএনপি নাচানাচি করে। বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় দেখবেন নূর হোসেন দিবস। সেই নূর হোসেন চত্বর এরশাদ করে দিয়েছেন।" যোগ করেন তিনি।

মশিউর রহমান রাঙ্গা আরও বলেন, "এরশাদ ছিলেন গণতন্ত্রের ধারক-বাহক। তিনি এদেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছেন।" 

এসময় আওয়ামী লীগ ও বিএনপি'র কঠোর সমালোচনা করে রাঙ্গা আরও বলেন, "আওয়ামী লীগ এবং বিএনপির গণতন্ত্রটা হলো এমন- যারা অতি ফেন্সিডিলখোর, ইয়াবাখোর, যারা ক্যাসিনোর ব্যবসা করে তারাই গণতন্ত্রের সোনার সন্তান।"

উল্লেখ্য, ১৯৮৭ সালের ১০ নভেম্বর বুকে ও পিঠে "স্বৈরাচার নিপাত যাক, গণতন্ত্র মুক্তি পাক" শ্লোগান লিখে রাস্তায় নেমেছিলেন নূর হোসেন। এরশাদের স্বৈরশাসনবিরোধী আন্দোলন তখন তুঙ্গে। ওইদিন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের একটি মিছিলে অংশ নিয়েছিলেন নূর হোসেন। মিছিলটি "জিরো পয়েন্ট" এলাকায় পৌঁছালে পুলিশ পুলিশ কাঁদুনে গ্যাস ও গুলি ছোড়ে। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান নূর হোসেন। মূলত এই ঘটনার পর এরশাদবিরোধী আন্দোলন তীব্র আকার ধারণ করে এবং ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াতে বাধ্য হন স্বৈরাচার এরশাদ।