• শনিবার, জানুয়ারী ১৮, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৩৮ সকাল

স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে আওয়ামী লীগের সভায় যুবলীগের হামলা

  • প্রকাশিত ০৯:১৬ রাত জানুয়ারী ১০, ২০২০
আওয়ামী লীগ-যুবলীগ
হামলাকারী যুবলীগ কর্মীরা উপজেলা আওয়ামী লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে থাকা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ভাংচুর করেন। ঢাকা ট্রিবিউন

হামলাকারী যুবলীগ কর্মীরা উপজেলা আওয়ামী লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে থাকা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ভাংচুর করেন

চাঁদপুরে ফরিদগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আয়োজিত  আওয়ামী লীগের সভায় হামলা চালিয়েছে উপজেলা যুবলীগের নেতা-কর্মীরা। শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) বেলা ১২টার দিকে এই ঘটনা ঘটে বলে নিশ্চিত করেছেন ফরিদগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রকিব। হামলার ঘটনায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, পুলিশ ও সাংবাদিকসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন বলে জানান তিনি। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ফরিদগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর-৪ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) ড. মো. শামছুল হক ভূঁইয়া। সভা চলাকালে বর্তমান এমপি মুহম্মদ শফিকুর রহমানের অনুসারী হিসেবে পরিচিত যুবলীগের একটি গ্রুপ দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে অনুষ্ঠানস্থলে এসে হামলায় চালায়। এ সময় তারা অস্থায়ী কার্যালয়ে থাকা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ভাংচুর করেন। এছাড়া ঘটনাস্থলে থাকা ৩টি গাড়ি, ২১টি মোটরসাইকেল, চেয়ার-টেবিল ভাংচুর করা হয়। 

সাবেক এমপি ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভূইয়া বলেন, "সভায় আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী ও মুক্তিযোদ্ধারা উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু হঠাৎ করে একদল অস্ত্রধারী এসে এখানে হামলা চালায়। আমি এদের খুব একটা চিনি না। তবে উপজেলা নেতৃবৃন্দ বলেছেন, এরা মাদকাসক্ত এবং এরা বর্তমান এমপি মহোদয়ের প্রতিনিধি ও অনুসারী হিসেবে পরিচিত।"

ফরিদগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক হেলাল উদ্দিন জানান, "বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের অনুষ্ঠানে বর্তমান সংসদ সদস্য (এমপি) সফিকুর রহমান, উপজেলা যুবলীগসহ কাউকেই দাওয়াত দেওয়া হয়নি। এমনকি, আমাদের মিছিল যাওয়ার সময় ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করা হয়। তাই ক্ষিপ্ত হয়ে কয়েকজন ওই সভাস্থলে প্রবেশ করেন।"

ফরিদগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রকিব বলেন, "বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে একটি আলোচনা সভা চলছিল। এ সময় ওই এলাকা দিয়ে উপজেলা যুবলীগের একটি মিছিল বের হয়। এক পর্যায়ে মিছিল থেকে বেরিয়ে আওয়ামী লীগের সভায় হামলা চালায়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে, এই ঘটনায় কাউকে আটক কিংবা কোনো মামলা দায়ের করা হয়নি।"