• রবিবার, এপ্রিল ০৫, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩১ দুপুর

গুলশানের বাসভবনে খালেদা জিয়া

  • প্রকাশিত ০৫:৪৪ সন্ধ্যা মার্চ ২৫, ২০২০
খালেদা জিয়া
২১ মাস কারাবাসের পর বুধবার মুক্তি পেয়েছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া ফোকাস বাংলা

কারাগার থেকে সাময়িক মুক্তি পেয়ে বিকাল সোয়া ৪টার দিকে সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল থেকে বের হন। পরে তার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দারের গাড়িতে গুলশানের পথে রওনা হন খালেদা জিয়া

দুর্নীতির মামলায় ২৫ মাস কারাভোগের পর নির্বাহী আদেশে ছয় মাস দণ্ড স্থগিত হওয়ায় সাময়িক মুক্তি পেয়ে বুধবার (২৫ মার্চ) গুলশানের বাসভবন “ফিরোজা”য় পৌঁছেছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া।

বিকাল সোয়া ৫টার দিকে তাকে বহন করা গাড়িটি রাজধানীর গুলশানের ৭৯ নম্বর সড়কের বাসভবন “ফিরোজা”য় প্রবেশ করে।

এর আগে কারাগার থেকে সাময়িক মুক্তি পে বিকাল সোয়া ৪টার দিকে সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতাল থেকে বের হন। পরে তার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দারের গাড়িতে গুলশানের পথে রওনা হন তিনি।

বিএনপি চেয়ারপার্সন কারাগারে যাওয়ার পর পরিত্যক্ত পড়েছিল বাসভবন “ফিরোজা”। তাকে বরণ করে নিতে বাসাটি ধুয়েমুছে ও জীবাণুমুক্ত করে প্রস্তুত করে তোলা হয়েছে।

এর আগে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক মঙ্গলবার (২৫ মার্চ) গুলশানে নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, দুই শর্তে খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

আইনমন্ত্রী জানান, খালেদা জিয়ার বয়স এবং মানবিকতা বিবেচনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় তারা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে রয়েছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। একই বছরে তিনি আরও একটি দুর্নীতির মামলায় দোষী সাব্যস্ত হন। যদিও তার দল বলছে, দুটি মামলাই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

দুর্নীতির দুই মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়াকে প্রথমে পুরান ঢাকার পরিত্যক্ত কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হলেও গত বছরের ১ এপ্রিল থেকে তিনি বিএসএমএমইউতে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন।