Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

তৈমূর: মরে গেলেও নির্বাচনী মাঠ ছাড়বো না

শনিবার (১৫ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তৈমূর আলম খন্দকার

আপডেট : ১৫ জানুয়ারি ২০২২, ০৩:৫৮ পিএম

গ্রেপ্তার হলেও নির্বাচন চালিয়ে যাবেন বলে জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকার।  

তিনি বলেন, “আমি প্রচার না সংবাদ সম্মেলন করছি। আমি ভোট চাইছি না। আমার লোকজনকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। এখন আমার গলায় আপনি ফাঁসি লাগিয়ে দিবেন আমি কথা বলতে পারবো না? লক্ষাধিক ভোটে পাশ করবো। মরে গেলেও মাঠ ছাড়বো না। প্রশাসনকে বলব জনগণের সেবা করা আপনাদের দায়িত্ব। বহুবার অনুরোধ করেছি এখন বিবেকের কাছে ছেড়ে দিলাম। আগামীকাল যাইহোক আমরা মাঠে থাকবো। গ্রেপ্তার হলে হবো কিন্তু নির্বাচন চালিয়ে যাবো।”

শনিবার (১৫ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তৈমূর আলম খন্দকার। 

তিনি বলেন, “আজকে আপনাদের সামনে হাজেরা বেগম উপস্থিত আছে। তারা স্বামী মহানগর শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদকের স্ত্রী। সে আমার বাড়িতে রাত দুটো পর্যন্ত ছিল। তাকে ঈদগাহের সামনে থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আরও চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের বেশিরভাগই আমার দলের গুরুত্বপূর্ণ পদের নেতা এবং নির্বাচনের দায়িত্ব পালন করছে। এমনকি সরকারি দলের সদস্যদেরও হুমকি দেওয়া হচ্ছে। পাঠানটুলি এলাকার একটা ছেলে আহসান, সেই এলাকায় আমার নির্বাচনের দায়িত্ব পালন করেছিল। তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এখনও তার খোঁজ পাইনি।”

তিনি আরও বলেন, “এখানে অনেক লোক আছেন যারা গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে আছেন। এদের মধ্যে এমন কোন লোক নেই যাদের বাড়িতে দুই থেকে তিনবার লোক যায়নি। প্রধানমন্ত্রীকে বলতে চাই, ‘আপনি আমাদের ওপর এত অত্যাচার করছেন কেন?’ প্রশাসনের এরকম কাজে আপনার ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে। মহানগর ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক পাপনও কাল এখানে ছিল। তাকেও গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। এভাবে আমার লোকদের গ্রেপ্তার করা হলে নির্বাচন কমিশন যে বলছে নির্বাচন সুষ্ঠু হবে, এটাই কি সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রক্রিয়া?” 

তৈমুর আলম খন্দকার বলেন, “এখানে যারা আছেন তাদের জিজ্ঞেস করে দেখেন পুলিশ কীভাবে অত্যাচার করছে। ইতোমধ্যেএকটি অডিও ভাইরাল হয়েছে। ভোটারদের নৌকায় ভোট দেওয়ার জন্য প্রেশার দেয়া হচ্ছে। নয়ত তাদের ভোট দিয়ে দেওয়া হবে।”


About

Popular Links