Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

হানিফ: কোন মুলার লোভে ধানের শীষে ড. কামাল

"আপনি কোন মুলার লোভে এখন সেই ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করতে যাচ্ছেন, জাতি জানতে চায়"

আপডেট : ১৭ নভেম্বর ২০১৮, ০৫:১৪ পিএম

কোন মুলার লোভে ড. কামাল হোসেন সেই ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করতে যাচ্ছেন, জাতি তা জানতে চায় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। 

শনিবার (১৭ নভেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবে 'বঙ্গবন্ধু-বাংলাদেশ এক ও অভিন্ন' গ্রন্থের প্রকাশনা উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

ড. কামাল হোসেনের উদ্দেশে হানিফ বলেন, "১৯৮১ সালের ১৫ নভেম্বর রাষ্ট্রপতি নির্বাচন হয়েছিল। জিয়াউর রহমান মারা যাওয়ার পর সাত্তার সাহেব যখন ভাইস প্রেসিডেন্ট থেকে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন তখন আপনিও আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। ভোট ডাকাতির মাধ্যমে আপনাকে সেই নির্বাচনে বিপুল ভোটে পরাজিত দেখানো হয়েছিল। তখন আপনি বলেছিলেন, ‘এই ধানের শীষ, জাতির সঙ্গে মুনাফিকি করেছে। এই ধানের শীষ নির্বাচন ব্যবস্থাকে ধ্বংস করেছে। আপনি কোন মুলার লোভে এখন সেই ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করতে যাচ্ছেন, জাতি জানতে চায়।’"

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, ‘ড. কামাল হোসেন একজন বিশিষ্ট আইনজীবী। আমরা অনেকেই তাকে শ্রদ্ধার সঙ্গে দেখে আসছি। একটি স্বচ্ছ রাজনীতি করার জন্য তিনি একটি জোট গঠন করেছেন ঐক্যফ্রন্ট নিয়ে। আমরা ধন্যবাদ জানিয়েছিলাম ঐক্যফ্রন্টকে। কিন্তু অবাক হলাম, বিএনপি সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ঘটালো, পুলিশের গাড়িতে আগুন দিলো আর ঐক্যফ্রন্টের নেতা হিসেবে ড. কামাল হোসেনকে একটা টু শব্দ করতে দেখিনি। কোনও নিন্দাও করেননি, দুঃখ প্রকাশও করেননি। এতে এটাই প্রমাণ হয় যে, তিনি ঐক্যফন্টের নেতা হলেও সব কলকাঠি নাড়ছে লন্ডন থেকে। ড. কামাল হোসেন লন্ডনের ভয়ে প্রতিবাদ করেনি অথবা অন্য কোন মুলার লোভে তিনি এটা নিয়ে প্রতিবাদ করেন নাই।’

বইটির লেখককে ধন্যবাদ জানিয়ে হানিফ বলেন, ‘সময়োপযোগী বইটি এমন সময়ে প্রকাশ হয়েছে যখন সারাদেশ নির্বাচন নিয়ে মুখর। বইয়ের নামটিও অর্থবহ। কেননা এ দেশের স্বাধীনতা অর্জনে বঙ্গবন্ধুরই অবদান। 

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সবুজবাগ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি চিত্তরঞ্জন দাস। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক শুক্কুর আলী শুভ, সাউন্ড বাংলা প্রকাশনা ও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার মমিন মেহেদী ও লায়ন শান্তা ফারজানা প্রমুখ।


About

Popular Links