Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ছাত্রলীগকে কাদের: নেতার দরকার নেই, চৌকস কর্মী চাই

ওবায়দুল কাদের ছাত্রলীগকে দ্রুত পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করতে বলেন

আপডেট : ০৬ জানুয়ারি ২০২৩, ০৮:৩৩ পিএম

“স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে নেতার দরকার নেই, স্মার্ট কর্মী দরকার” বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, “বাংলাদেশ ছাত্রলীগ একটি প্রধান সংগঠন। এর একটি গৌরবময় ইতিহাস রয়েছে। আমাদের আবার আমাদের ট্র্যাকে ফিরে আসতে হবে।”

শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আওয়ামী লীগের ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

টেলিভিশন ফুটেজ ও প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে অপরাজেয় বাংলা স্মারকের সামনের উপচে পড়া মঞ্চটিতে ওবায়দুল কাদের বক্তব্য দেওয়ার সময় ভেঙে পড়ে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হলেও অক্ষত ছিলেন ওবায়দুল কাদের। আহতদের হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন।

ঘটনার আগে তিনি ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে নিজেদের প্রস্তুত করতে বলেন। তিনি ছাত্রলীগকে দ্রুত কমিটি গঠন করতে বলেন।

তিনি বলেন, “আমরা ছাত্রলীগের কমিটিতে শীর্ষ দুই নেতার নাম ঘোষণা করেছি কিন্তু এখনও পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়নি। জাতীয় নির্বাচনের আগে আমাদের অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে বলে দ্রুত কমিটিগুলো গঠন করতে হবে।”

কর্মসূচিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা মহানগরীর (উত্তর ও দক্ষিণ) বিভিন্ন ইউনিটের ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা, ছাত্রলীগের সাবেক নেতারা যোগ দেন।

ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কাদের। পরিচালনা করেন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনান।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “আমরা ২০২৪ সালের আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের অগ্রগামী হবো এবং আমরা স্বাধীনতা বিরোধী শক্তিকে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে দেবো না। এটি আমাদের প্রতিশ্রুতি এবং এই ৭৫ বছরপূর্তি উদযাপনে আমরা বছরে ৭৫টি বিজয় সমাবেশের আয়োজন করব।”

তিনি বলেন, “আগামী দিনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হলে সন্ত্রাস, সাম্প্রদায়িকতা ও তাদের সহযোগী বিএনপির বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে।”

অনুষ্ঠানটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শুরু হয় এবং অপরাজেয় বাংলা স্মৃতিস্তম্ভ থেকে শুরু হয়ে ধানমন্ডি-৩২ পর্যন্ত একটি র‌্যালির মাধ্যমে শেষ হয়।

About

Popular Links