Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ফখরুল: নতুন রাষ্ট্রপতির কাছে বিএনপির কোনো প্রত্যাশা নেই

ফখরুল বলেন, ‘নতুন রাষ্ট্রপতি দেশের রাজনৈতিক সংকট নিরসনে ভূমিকা রাখতে পারবেন কি-না তা নিয়ে মানুষের সন্দেহ আছে’

আপডেট : ২৪ এপ্রিল ২০২৩, ১০:৩৯ পিএম

নতুন রাষ্ট্রপতির কাছে বিএনপির কোনো প্রত্যাশা নেই বলে জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, “আমরা জানি তিনি (রাষ্ট্রপতি) কী ভূমিকা পালন করতে পারেন। সংবিধানের বাইরে যাওয়ার তার কোনো সুযোগ নেই। এছাড়া আমরা মনে করি না তার সেই সাহস আছে।”

সোমবার (২৪ এপ্রিল) বিএনপি চেয়ারপার্সনের গুলশান কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

ফখরুল জানান, নতুন রাষ্ট্রপতির ওপর তাদের আস্থা নেই।

তিনি জানান, মো. সাহাবুদ্দিনকে মানুষ বেশি চেনে না। তাই ক্ষমতাসীন দল তাকে রাষ্ট্রপতি করায় তারা কিছুটা হতাশ হয়েছেন। তিনি বলেন “আমরা এ বিষয়ে বেশি কিছু বলতে পারব না। আওয়ামী লীগ কেন মো. সাহাবুদ্দিনকে দেশের ২২তম রাষ্ট্রপতি করেছে তা বিএনপির কাছে পরিষ্কার না। এই বছরের রাষ্ট্রপতি নিয়োগ মানুষকে বিস্মিত করেছে।”

এর আগে বাংলাদেশের ২২তম রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ নেন মো. সাহাবুদ্দিন। ফখরুল বলেন, “নতুন রাষ্ট্রপতি দেশের রাজনৈতিক সংকট নিরসনে ভূমিকা রাখতে পারবেন কি-না তা নিয়ে মানুষের সন্দেহ আছে।”

তিনি জানান, তাদের দল নতুন রাষ্ট্রপতির প্রেক্ষাপট নিয়ে কোনো প্রশ্ন তোলেনি, কারণ তারা তাকে নিয়ে আগ্রহী নয়। আগামী জাতীয় নির্বাচন নিয়ে তারা মূল বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দিতে চান।

তিনি বলেন, “বর্তমান নির্বাচনী প্রক্রিয়া গণতান্ত্রিক নয়। বিরোধী দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে না পারলে এবং নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার গঠন না করলে সবকিছুই অর্থহীন হয়ে পড়বে। তাই, আমরা এ বিষয়টির ওপর ফোকাস করছি।”

রাজনৈতিক সংকট নিরসনে রাষ্ট্রপতি সংলাপ শুরু করলে বিএনপি তাতে যোগ দেবে কি-না এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “সরকারকে পাশ কাটিয়ে কিছু করার ক্ষমতা রাষ্ট্রপতির নেই। সরকার যদি চায়, তাহলেই রাষ্ট্রপতি এটা করবেন। সরকার পরিষ্কারভাবে বলেছে যে, তারা তত্ত্বাবধায়ক সরকার নিয়ে আলোচনায় অংশ নেবে না। তাই, সংলাপের প্রশ্নই আসে না।”

এই বিএনপি নেতা বলেন, “গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে, মানুষের সুন্দর ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করতে এবং সংঘাতের রাজনীতি এড়াতে হলে নির্বাচনকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি মেনে নিতে হবে।”

তিনি জানান, তাদের দল অন্তর্বর্তী সরকারের অধীনে পরবর্তী নির্বাচনসহ তাদের ১০ দফা দাবি মেনে নিতে সরকারকে বাধ্য করার জন্য চলমান আন্দোলন আরও জোরদার করবে।

ফখরুল বলেন, “সরকারের মনোভাবের ওপর ভিত্তি করে আন্দোলনের ধরন নির্ধারণ করবে দেশবাসী।”

About

Popular Links