Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

নাজমুল হুদার মেয়ের হাতে তৃণমূল বিএনপির হাল

জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশের ৩০০টি আসনে দলের প্রার্থীর তালিকা তৈরি করা হবে বলে জানিয়েছেন তৃণমূল বিএনপির উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট সিগমা হুদা

আপডেট : ০৭ মে ২০২৩, ০৪:০০ পিএম

আড়াই মাস আগে নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধন পাওয়া “তৃণমূল বিএনপি”র হাল ধরলেন প্রয়াত নাজমুল হুদার মেয়ে অন্তরা সেলিমা হুদা। পরবর্তী কাউন্সিল না হওয়া পর্যন্ত দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন তিনি।

শনিবার (৬ মে) দুপুরে গুলশানে শাইনপুকুর স্যুটসের সিগনেচার হলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে দলের এই সিদ্ধান্তের কথা জানান নাজমুল হুদার স্ত্রী এবং তৃণমূল বিএনপির উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট সিগমা হুদা।

এ সময় তিনি জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশের ৩০০টি আসনে দলের প্রার্থীর তালিকা তৈরি করা হবে বলেও জানান।

২০১৫ সালে তৃণমূল বিএনপি গঠন করেন বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য নাজমুল হুদা। গত ১৯ ফেব্রুয়ারি তিনি মারা যান। তার মৃত্যুর পর তৃণমূল বিএনপির চেয়ারম্যানের পদটি ফাঁকা ছিল। ৭৬ দিন পর নতুন নেতার নাম ঘোষণা করা হল।

সংবাদ সম্মেলনে সিগমা হুদা বলেন, “দলের সাধারণ সভায় মরহুম চেয়ারম্যানের বড় মেয়ে অ্যাডভোকেট অন্তরা সেলিমা হুদাকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান পদে মনোনীত করা হয়েছে। আমরা প্রত্যাশা করছি, তার নেতৃত্বে নাজমুল হুদার অসমাপ্ত স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে তৃণমূল বিএনপিকে সামনে এগিয়ে নেওয়া সম্ভব হবে।”

বর্তমান কমিটি অ্যাডহক ভিত্তিতে আগামী বছর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া প্রথম কাউন্সিল সভা পর্যন্ত কাজ চালিয়ে যাবে বলেও জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলন মায়ের পাশের চেয়ারে বসা ছিলেন অন্তরা সেলিমা হুদা। পরে দলের উপস্থিত নেতারা তাকে করতালি দিয়ে অভিনন্দন জানান। এ সময় তৃণমূল বিএনপির মহাসচিব শেখ হাবিবুর রহমান ও জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব আক্কাস আলী খান উপস্থিত ছিলেন।

পরে অন্তরা সেলিমা হুদা তার বক্তব্যে আসন্ন দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন নিয়ে দলের পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন। তিনি তার বক্তব্যের শুরুতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানকে স্মরণ করেন।

আগামী সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনে প্রার্থী দেওয়ার প্রসঙ্গে সিগমা হুদা বলেন, “আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম আরও গতিশীল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তাই সারা দেশে সদস্য সংগ্রহ অভিযান, পার্টি ফান্ড ও নির্বাচনী ফান্ড সংগ্রহ করা হবে। জাতীয় নির্বাচনকে সমানে রেখে দেশের ৩০০টি আসনে দলের প্রার্থীর তালিকা তৈরি করা হবে।”

এক প্রশ্নের জবাবে অন্তুরা হুদা বলেন, “যদি পরিবেশ হয়, অবশ্যই আমরা নির্বাচনে যাব।”

নির্বাচনে কি জোটবদ্ধ হয়ে নাকি এককভাবে ৩০০ আসনে প্রার্থী দেবেন-জানতে চাইলে সিগমা হুদা বলেন, “সেটা পরিস্থিতি বলে দেবে। আমরা সবেমাত্র যাত্রা শুরু করলাম।”

এ সময় পাশ থেকে সিগমা হুদা বলেন, “আমরা কারও পক্ষে নই, বিপক্ষেও নই। বাংলাদেশের জন্য যেটা ভালো হবে, মঙ্গল হবে, সেইভাবে আমরা যাব।”

অন্তরা বলেন, “আমার বাবার স্বপ্ন এবং অসমাপ্ত কাজগুলোকে বাস্তবায়ন করার জন্য এই দায়িত্ব পালনে আমি সম্মত হই। দলের সকল সদস্য ও দেশের জনগণকে নিয়ে যেন দেশের জন্য ও দেশের জনগণের জন্য কাজ করতে পারি, এজন্য আমি আপনাদের (গণমাধ্যম) কাছে এবং আপনাদের মাধ্যমে দেশবাসীর কাছে সহযোগিতা ও দোয়া চাই।”

প্রসঙ্গত, সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন সময়ে দলটিতে যুক্ত হন। দলের নীতিনির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৯১ সালে ও ২০০১ সালে খালেদা জিয়ার সরকারে মন্ত্রী ছিলে। তবে মাঝে একবার দল থেকে বহিষ্কৃত হয়ে পুনরায় দলে ফিরেছিলেন এই নেতা।

২০১২ সালে আবারও বিএনপির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে বিএনএফ নামে নতুন একটি রাজনৈতিক দল গঠন করেন। পরে সেই দল থেকে তাকেই বহিষ্কার করে ২০১৪ সালে জাতীয় নির্বাচন করে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন দলটির প্রতিষ্ঠাকালীন প্রধান সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ।

এরপর বাংলাদেশ ন্যাশনাল অ্যালায়েন্স (বিএনএ) ও বাংলাদেশ মানবাধিকার পার্টি (বিএমপি) নামে দুটি নতুন রাজনৈতিক দল গঠন করে আওয়ামী লীগের জোটে ভিড়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন হুদা। পরে “তৃণমূল বিএনপি” নামে নতুন দল গঠন করেন, যা গত ১৬ ফেব্রুয়ারি নিবন্ধন পায়।

ফলে নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত দলের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪০টিতে। এছাড়া বর্তমানে নতুন দল নিবন্ধনের প্রক্রিয়া চলছে। নিবন্ধিত দল ব্যতীত কোনো দল সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে পারে না।

About

Popular Links