Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

প্রধানমন্ত্রীকে ‘হত্যার হুমকি’ দেওয়া বিএনপি নেতা চাঁদ পাঁচ দিনের রিমান্ডে

১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন

আপডেট : ২৫ মে ২০২৩, ০৬:৪২ পিএম

প্রধানমন্ত্রীকে “হত্যার হুমকি” দেওয়া রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নগরীর হড়গ্রাম এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। রাজশাহী জেলা ও মহানগর পুলিশ (আরএমপি) যৌথভাবে সড়কে চেকপোস্ট বসিয়ে একটি প্রাইভেটকার থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে।

বৃহস্পতিবার (২৫ মে) আবু সাঈদ চাঁদকে রাজশাহীর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৪ এর বিচারক মাহবুব আলমের আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট জালাল উদ্দিন ঢাকা ট্রিবিউনকে জানান, বিকেল সোয়া ৪টার দিকে আবু সাঈদ চাঁদকে রাজশাহীর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৪ এ হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে আদালতের বিচারক মাহবুব আলম পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুঠিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুজন আলী ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “এর পেছনে কেউ আছে কী-না, প্রকৃত রহস্য খুঁজে বের করতে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়। এ সময় চাঁদের আইনজীবীরা রিমান্ডের বিরোধিতা করেন। তবে শুনানি শেষে আদালত সার্বিক বিবেচনা করে পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আদেশের পর বিকেল ৫টা ১৫ মিনিটে আদালত থেকে জেলা পুলিশের হেফাজতে তাকে নেওয়া হয়।”

এর আগে আবু সাঈদ চাঁদকে গ্রেপ্তারের পর দুপুর ১২টায় আরএমপি সদরদপ্তরে সংবাদ সম্মেলন করেন রাজশাহী রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) আবদুল বাতেন। সেখানে তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রীকে প্রকাশ্যে হত্যার হুমকি দেওয়ায় পুঠিয়া থানায় চাঁদের বিরুদ্ধে প্রথম মামলা হয়। ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হবে। তাকে আজ বেলা সোয়া ১১টার দিকে রাজশাহী নগরীর ভেড়িপাড়া মোড় থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।”

ডিআইজি আবদুল বাতেন জানান, বিভিন্ন অপরাধে তার বিরুদ্ধে আগে থেকেই ২০-২৫টি মামলা রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকির ঘটনায় রাজশাহী জেলা ও মহানগরের থানাগুলোতে আরও ছয় থেকে সাতটি মামলা হয়েছে। এ ছাড়া দেশের বিভিন্ন থানায় বেশ কিছু মামলা হয়েছে তার বিরুদ্ধে।

গত ১৯ মে বিকেলে রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার শিবপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা ও মহানগর বিএনপি আয়োজিত এক সমাবেশে চাঁদ বলেন, “আর ২৭ দফা ১০ দফার মধ্যে আমরা নাই। এক দফা- শেখ হাসিনাকে কবরস্থানে পাঠাতে হবে। শেখ হাসিনাকে পদত্যাগ করার জন্য যা যা করার দরকার আমরা করবো।”

তার এই বক্তব্যের ভিডিও দুই দিন পর ছড়িয়ে পড়লে নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। রাজশাহী জেলা ও মহানগরসহ দেশের বিভিন্ন থানায় তার নামে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে বেশ কিছু মামলা হয়। আত্মগোপনে থাকা চাঁদকে গ্রেপ্তার করতে অভিযান চালিয়ে আসছিল পুলিশ। ২৫ মার্চ গ্রেপ্তারের পর চাঁদকে নগরীর সিঅ্যান্ডবি মোড়ে আরএমপির সদরদপ্তরে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে বলে জানানো হয়েছে।

About

Popular Links