Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

হিরো আলম: নির্বাচন সুষ্ঠু হলে ঢাকা-১৭ আসনে আমি জিতব

অভিজাত শ্রেণির লোকেরা ভোট দিতে কম যান বলেও উল্লেখ করেন হিরো আলম

আপডেট : ১৫ জুন ২০২৩, ০৬:০৬ পিএম

ঢাকা-১৭ আসনের (গুলশান, বনানী, ভাষানটেক থানা ও সেনানিবাস এলাকা) উপনির্বাচনে সংসদ সদস্য প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছনে আলোচিত ইউটিউবার আশরাফুল হোসেন ওরফে হিরো আলম।

বৃহস্পতিবার (১৫ জুন) দুপুরে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের ইটিআই ভবনে রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. মুনীর হোসাইন খানের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন তিনি। সেখান থেকে বের হয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন হিরো আলম।

সুষ্ঠু ভোট হলে তিনি জিতবেন বলে এ সময় আশা প্রকাশ করেন তিনি। ওই আসনের অভিজাত শ্রেণির লোকেরাও তাকে ভোট দেবেন বলে আশাপ্রকাশ করেন হিরো আলম।

তিনি বলেন, “বগুড়ার দুই আসনের উপনির্বাচনে আমাকে ছয়নয় করে হারানো হয়েছে। সেখানে হারানোর প্রতিবাদের মশাল হিসেবে এখানে ভোট করছি। আমাকে বারবার কেন হারানো হচ্ছে? জেতা ভোটে কেন আমি আমার ক্ষমতা বুঝে পেলাম না? তারই পরিপ্রেক্ষিতে এখানে ভোট করছি। দেখি, ওরা ওখানে হারিয়েছে, এখানেও হারায় কি-না। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আমি এখানেও জয়লাভ করব।”

গুলশান একটি এলিট (অভিজাত) এলাকা। প্রতিটি রাজনৈতিক দল সেখানে সেভাবে মনোনয়ন দেয়। আপনি কি মনে করেন এলিটদের ভোট পাবেন? এক সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে হিরো আলম বলেন, “আপনারা ভোটের দিন গিয়ে দেখবেন তো, এলিটের কথা বলছেন, কোটিপতির কথা বলছেন, তারা ভোটের দিন ভোটের মাঠে আসেন কি-না? আর কয়টা লোক ভোটের মাঠে আসে, দেখবেন তো। আর ওখানেই শুধু এলিট শ্রেণির লোক আছে? এর বাইরে নাই? শিক্ষিত লোক খালি ওই এলাকায় আছে? কড়াইলবস্তি, ভাষানটেকে কি শিক্ষিত লোক থাকে না? তাহলে আপনারা বারবার কেন শুধু ওই আসনের কথা বলছেন।'”

হিরো আলম আরও  বলেন, “এলিট শ্রেণির লোকেরা কখনো আমাকে বলছে তোমাকে ভোট দেব না, কোন টাইমে বলছে? যারা বলছে, তারা ওই আসনের ভোটারাই না।”

উল্লেখ্য, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য ও প্রখ্যাত চলচ্চিত্র অভিনেতা আকবর হোসেন পাঠান ফারুকের মৃত্যুতে ঢাকা-১৭ আসনটি শূন্য হয়। আগামী ১৭ জুলাই এই আসনের উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ১৫ জুন, মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের তারিখ ১৮ জুন এবং প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৫ জুন।

বর্তমান জাতীয় সংসদের মেয়াদ শেষ হয়ে আসছে। এই বছরের ডিসেম্বরে অথবা ২০২৪ সালের জানুয়ারি মাসে জাতীয় নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। ফলে এ আসনের উপনির্বাচনে যিনি নির্বাচিত হবেন, তিনি সংসদে বসার সুযোগ পাবেন মাত্র চার মাস।

About

Popular Links