Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ফখরুল: ‘অল্প সময়ের মধ্যে’ প্রধানমন্ত্রী শক্তিশালী বিরোধী দল দেখবেন

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘উনি (প্রধানমন্ত্রী) যেটা দেখতে চাচ্ছেন, অতি অল্প সময়ের মধ্যে সেটা দেখতে পাবেন’

আপডেট : ১৭ এপ্রিল ২০২২, ১০:০৩ এএম

প্রধানমন্ত্রী “অতি অল্প সময়ের মধ্যে” শক্তিশালী বিরোধী দল দেখতে পাবেন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী কোন ধরনের শক্তিশালী বিরোধী দল দেখতে চাচ্ছেন, আমরা ঠিক বুঝি না। উনি যেটা দেখতে চাচ্ছেন, অতি অল্প সময়ের মধ্যে সেটা দেখতে পাবেন।”

শনিবার (১৬ এপ্রিল) দুপুরে রাজধানীর গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

উল্লেখ্য, ১১ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের (পিএমও) কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে শক্তিশালী বিরোধী দল না থাকায় আক্ষেপ করেন। তিনি বলেন, “অপজিশন বলতে দুটো পার্টি আছে (বিএনপি ও জাতীয় পার্টি)। দুটোই মিলিটারি ডিক্টেটরদের হাতে গড়া। জনগণের কাছে তাদের অবস্থান নেই। একেবারে সংবিধান লঙ্ঘন করে, আর্মি রুলস ভঙ্গ করে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করেছিল তাদের হাতে গড়া। কাজেই ঠিক ওই মাটি ও মানুষের সঙ্গে যে সম্পর্ক সেই সম্পর্কটা তাদের মধ্যে নেই। তাদের কাছে ক্ষমতাটা ছিল একটা ভোগের জায়গা। সেই ক্ষেত্রে আসলে অপজিশন তাহলে কোথায়? এখানে একটা পলিটিকাল সমস্যা কিন্তু আছে।”


আরও পড়ুন- দেশে শক্তিশালী বিরোধী দল না থাকায় প্রধানমন্ত্রীর আক্ষেপ


এ বিষয়ে সাংবাদিকরা দৃষ্টি আকর্ষণ করলে মির্জা ফখরুল বলেন, “এ সমস্ত কথা হলো মূল বিষয়কে এড়িয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করা ছাড়া আর কিছুই না। শক্তিশালী বিরোধী দল আছে বলেই তো আমরা আমাদের কথাগুলো বলছি। কিন্তু পার্লামেন্টে বিরোধী দল নাই তাদের কার্যকলাপের কারণে। তারা দেশে গণতন্ত্রের কোনো স্পেস রাখেনি। গণতান্ত্রিক স্পেস না থাকলে একটা ফ্যাসিবাদী রাষ্ট্রের মধ্যে উনি (প্রধানমন্ত্রী) কোন ধরনের শক্তিশালী বিরোধী দল দেখতে চাচ্ছেন, আমরা ঠিক বুঝি না। উনি যেটা দেখতে চাচ্ছেন, অতি অল্প সময়ের মধ্যে সেটা দেখতে পাবেন।”

শুক্রবার বিকেলে অনুষ্ঠিত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সভার সিদ্ধান্ত জানাতে এই সংবাদ সম্মেলন ডাকা হয়। সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব জানান, যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বার্ষিক প্রতিবেদনে বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে যে চিত্র উঠে এসেছে তাতে বিএনপি গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

তিনি বলেন, “এই প্রতিবেদনে প্রমাণিত হয়েছে আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে অন্যায়ভাবে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়। প্রতিবেদনে গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কারচুপি, রাতে ভোট, ভোটারদের ভয়ভীতি দেখানোর কথা বলা হয়েছে। এতে ওই নির্বাচন প্রহসনের নির্বাচনে পরিণত হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এর ফলে প্রমাণিত হয় এই জালিয়াত, অনির্বাচিত সরকারের অধীনে কখনও সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন সম্ভব নয়।”

About

Popular Links