Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

এক নজরে সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী

রাজনীতির পাশাপাশি তিনি সামাজিক কাজেও নিজেকে নিয়োজিত করেন এবং খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে অবদান রাখেন

আপডেট : ১২ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৫৭ এএম

জাতীয় সংসদের উপনেতা ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৭ বছর।

রবিবার (১২ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টা ৪০ মিনিটে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী বাংলাদেশের বিশিষ্ট প্রমীলা রাজনীতিবিদ। তিনি জাতীয় সংসদের উপনেতা ও  আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ছিলেন। পরিবেশ ও বনমন্ত্রী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

রাজনীতির পাশাপাশি তিনি সামাজিক কাজেও নিজেকে নিয়োজিত করেন এবং খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে অবদান রাখেন।

১৯৩৫ সালে মাগুরার এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণকারী সাজেদা চৌধুরী ১৯৫৬ সালে আওয়ামী লীগে যোগদানের পর থেকে সকল আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন।

তার স্বামী গোলাম আকবর চৌধুরী ছিলেন একজন রাজনীতিবিদ ও সমাজসেবক। তিনি ২০১৫ সালে মারা যান। এই দম্পতির তিন ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

তিনি ১৯৬৯ সালে দলের মহিলা শাখা মহিলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ছিলেন এবং ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত এই পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।

মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি কলকাতা গোবরা নার্সিং ক্যাম্পের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ছিলেন। ২০১০ সালে তাকে স্বাধীনতা পুরস্কার দেওয়া হয়।

১৯৭৪ সালে তিনি গ্রামীণ উন্নয়ন ও শিক্ষায় বিশেষ অবদানের জন্য ইউনেস্কো ফেলোশিপ পান। একই বছর তিনি বাংলাদেশ গার্ল গাইড অ্যাসোসিয়েশনের জাতীয় কমিশনার হিসাবে সিলভার এলিফ্যান্ট অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেন।

২০০০ সালে তিনি আমেরিকান বায়োগ্রাফিক্যাল ইনস্টিটিউট দ্বারা বছরের সেরা মহিলা নির্বাচিত হন।

সাজেদা চৌধুরী ১৯৮৬ সালে দলের সাধারণ সম্পাদক হন ও ১৯৯২ সাল পর্যন্ত এই পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন। পরে তিনি সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী সংস্থা প্রেসিডিয়ামে অন্তর্ভুক্ত হন।

২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ বিজয়ের পর, ২০০৯ সালে তিনি প্রাথমিকভাবে সংসদের উপনেতা নিযুক্ত হন।

২০১৪ ও ২০১৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জয়ী হওয়ার পর সাজেদা চৌধুরীকে একই পদে পুনর্নিযুক্ত করা হয়।

২০১৯ সালে তিনি ফরিদপুর-২ আসন (নগরকান্দা, সালথা, সদরপুর) থেকে সপ্তমবারের মতো সংসদ সদস্য ও তৃতীয়বারের মতো সংসদের উপনেতা নির্বাচিত হন।

About

Popular Links