Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

দুদু: মানুষ জেগে উঠেছে, কখন কী হয় বলা যায় না

দুদু বলেন, এ সরকার ক্ষমতায় থাকাবস্থায় আর কোনো নির্বাচন হবে না। যেকোনো সময় আওয়ামী সরকারের পদত্যাগের সংবাদ পাবে দেশের জনগণ

আপডেট : ১১ জানুয়ারি ২০২৩, ০৫:১৫ পিএম

নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি জানিয়ে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, “বিনা ভোটের সরকারের সময় শেষ। দেশের মানুষ জেগে উঠেছে, কখন কী হয় বলা যায় না। অবিলম্বে পদত্যাগ না করলে করুণ পরিণতি হবে।”

বুধবার (১১ জানুয়ারি) খুলনায় বিএনপির বিভাগীয় গণ-অবস্থান কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 

শামসুজ্জামান দুদু বলেন, “পুলিশ ও দলীয় ক্যাডার দিয়ে গণতন্ত্র মুক্তিকামী মানুষকে আর দমিয়ে রাখা যাবে না। জনগণ প্রতিরোধ করতে মাঠে নেমেছে। অবৈধ সরকার সবকিছুকে নিয়ন্ত্রণ করে আবারও একদলীয় শাসন কায়েম করার যে ষড়যন্ত্র করছে দেশের জনগণ সেটি হতে দেবে না। আন্দোলনের মাধ্যমে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবো। তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনবো।”

সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে লুটপাটে ব্যস্ত মন্তব্য করে তিনি বলেন, “এ সরকার ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় আর কোনো নির্বাচন হবে না। যেকোনো সময় আওয়ামী সরকারের পদত্যাগের সংবাদ পাবে দেশের জনগণ।”

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক সংসদ সদস্য মেহেদী আহমেদ রুমি বলেন, “জনবিচ্ছিন্ন এই সরকার এখন কাগজের বাঘ, দেশ এখন পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। এমপি-মন্ত্রীরা পুলিশ ছাড়া চলাচল করতে পারছে না। পুলিশ ছাড়া মাঠে নামলে আওয়ামী লীগকে দেশ ছেড়ে পালানোর সুযোগ দেবে না জনগণ।”

বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) অনিন্দ্য ইসলাম অমিত বলেন, “স্বৈরাচার হাসিনা সরকারকে হটিয়ে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা না হওয়া পর্যন্ত শহিদ জিয়ার সৈনিকেরা ঘরে ফিরবে না। ক্ষমতা দখলের জন্য নয়; দেশের মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য আন্দোলন সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে।”

খুলনা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি সদস্য অ্যাডভোকেট শফিকুল আলম মনার সভাপতিত্বে এবং জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আমীর এজাজ খান, মহানগর সদস্যসচিব শফিকুল আলম তুহিন ও জেলা সদস্যসচিব মনিরুল হাসান বাপ্পির সঞ্চলনায় কর্মসূচিতে আরও বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত কোষাধ্যক্ষ মাহমুদ হাসান খান বাবু, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ওবায়দুর রহমান, সহসাংগঠনিক সম্পাদক জয়ন্ত কুমার কুন্ডু, সহপ্রচার সম্পাদক শামীমুর রহমান শামিম, সহতথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আমিরুজ্জামান শিমুল, সহধর্ম বিষয়ক সম্পাদক অমলেন্দু দাশ অপু, যশোর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপিকা নার্গিস বেগম, সাবেক সংসদ সদস্য মফিদুল ইসলাম তৃপ্তি, সাবেক সংসদ সদস্য কাজী আলাউদ্দিন, নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য শহিদুল আলম, সাবেক সংসদ সদস্য শাম্মী আক্তার, মেহেরপুর জেলা সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য মাসুদ অরুন, সাবেক সংসদ্য রেজা আহমেদ বাচ্চু মোল্লা, ঝিনাইদহ জেলা বিএনপির সভাপতি এম এ মজিদ প্রমুখ।

বিএনপি আজ ঢাকাসহ ১০টি বিভাগীয় শহরে (সাংগঠনিক বিভাগ) গণ-অবস্থান কর্মসূচি দিয়েছে। ঢাকার নয়াপল্টনে বেলা সাড়ে ১০টায় কেন্দ্রীয় কর্মসূচি শুরু হয়। বর্তমান সরকারের পদত্যাগ, সংসদ বিলুপ্ত করা ও নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীন নির্বাচনসহ ১০ দফা দাবিতে বিএনপির নেতৃত্বে বিভিন্ন দল ও জোট গত ডিসেম্বর থেকে যুগপৎ আন্দোলন শুরু করেছে। আজকের গণ-অবস্থান ছিল তাদের দ্বিতীয় যুগপৎ কর্মসূচি। বেলা আড়াইটায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শেষ হয়। আগামী ১৬ জানুয়ারি দেশব্যাপী বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিলের যুগপৎ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে দলটি।

About

Popular Links