Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সাংবাদিক শওকত মাহমুদকে বিএনপি থেকে বহিষ্কার

দলীয় শৃঙ্খলাবিরোধী কর্মকাণ্ডে লিপ্ত থাকার সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে শওকত মাহমুদকে সব পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিএনপি

আপডেট : ২১ মার্চ ২০২৩, ০৫:০৩ পিএম

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাংবাদিক শওকত মাহমুদকে দলের প্রাথমিক সদস্য পদসহ সব পর্যায়ের পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২১ মার্চ) দুপুরে এ কথা জানান বিএনপির মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান। 

দলের স্থায়ী কমিটির এক সদস্য জানান, গত বৃহস্পতিবার (১৬ মার্চ) রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে আড়ম্বরপূর্ণ নৈশভোজের মাধ্যমে ১০ বছরের পুরনো সংগঠন জাতীয় ইনসাফ কায়েম কমিটি (ন্যাশনাল কমিটি ফর সিভিল রাইটস) সক্রিয় করেন ফরহাদ মজহার ও শওকত মাহমুদ। হঠাৎ করেই ইনসাফ কায়েম কমিটি সক্রিয় করার মধ্য দিয়ে আবারও বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্বে অস্বস্তি সৃষ্টি হয়। দলের সিনিয়র নেতারাও শওকত মাহমুদের সক্রিয়তার সমালোচনা করেন।

স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, “বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সিদ্ধান্তে শওকতকে দল থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি দলের কয়েকজন নেতাকে নিবিড় নজরদারিতে রেখেছে। শওকত মাহমুদ তাদের একজন।

মঙ্গলবার বিকাল ৩টার দিকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু বলেন, দলীয় শৃঙ্খলাবিরোধী কর্মকাণ্ডে লিপ্ত থাকার সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ভাইস চেয়ারম্যান মো. দলটির, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) প্রাথমিক সদস্য পদে নিযুক্ত শওকত মাহমুদকে সব পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

১৬ মার্চ বনানীর হোটেলে ‘ইনসাফ কমিটির' ভোজসভায় কয়েকজন সাবেক সেনা কর্মকর্তা, শিক্ষক ও রাজনীতিবিদ অংশ নেন। সেখানে বিএনপির কোনো নেতা উপস্থিত না থাকলেও দলের ঘনিষ্ঠজন মাহমুদুর রহমান মান্না ও অলি আহমেদ উপস্থিত ছিলেন। আরও কয়েকজন নেতার উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও তারা ভোজ এড়িয়ে যান।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, শওকতকে বহিষ্কারের বিষয়ে কিছু সদস্য ভিন্নমত প্রকাশ করেন।

এদিকে মঙ্গলবার সকালে স্থায়ী কমিটির বৈঠক প্রসঙ্গে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বৈঠকে রোববার পদ্মা সেতুর শিবচর প্রান্তে বাস দুর্ঘটনায় ২১ জন নিহতের ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করা হয়েছে। সভায় মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয় এবং পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানানো হয়।

About

Popular Links