Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার অবনতি, জানালেন চিকিৎসকরা

  • লিভার সিরোসিসের কারণে সমস্যা বাড়ছে
  • রাখা হয়েছে নিবিড় পর্যবেক্ষণে
  • ৯ আগস্ট থেকে হাসপাতালে ভর্তি
আপডেট : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০৪:২৩ পিএম

২৮ দিন ধরে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিএনপি নেত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা।

লিভার সিরোসিসের কারণে সমস্যা বাড়ছে বলেও জানান তারা।

এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে বর্তমানে করোনারি কেয়ার ইউনিটের (সিসিইউ) সুবিধা সম্বলিত একটি কেবিনে চিকিৎসকদের নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

সোমবার রাত থেকে খালেদা জিয়ার অবস্থার কিছুটা অবনতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন তার চিকিৎসকরা।

খালেদা জিয়ার পেটে পানি জমা হয়েছে, যা ক্রমাগত অপসারণ করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, মূলত লিভার সিরোসিসের কারণে তার অবস্থা জটিল হয়ে উঠেছে। এ রোগের কারণে খালেদা জিয়ার শরীরে প্রোটিনের মাত্রাও কমে যাচ্ছে।

বুধবার (৬ সেপ্টেম্বর) বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন বলেন, “তার চিকিৎসার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ড সোমবার রাতেও বৈঠক করেছে। ডাক্তাররা কিছু ওষুধের পরিবর্তন করেছেন। তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, “লিভারের রোগ তার শরীরের অন্যান্য প্রকিয়াকে প্রভাবিত করছে।”

এ জেড এম জাহিদ হোসেন বলেন, “মেডিকেল বোর্ড আমাদের বলেছে যে, দেশে তার শতভাগ চিকিৎসা সম্ভব নয়। এই মুহূর্তে তাকে বিদেশে নিয়ে গিয়ে লিভার ট্রান্সপ্লান্ট করা দরকার, যা বাংলাদেশে সম্ভব নয়।

এই চিকিৎসক বলেন, “তার শারীরিক অবস্থা দিন দিন খারাপ হচ্ছে। তার হার্টের সমস্যা আছে। মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রেখেছেন। তারা যথাসাধ্য চেষ্টা করছে।”

বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান বলেন, “কেবিনে তাকে সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।”

প্রসঙ্গত, গত ৯ আগস্ট সন্ধ্যায় স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য খালেদা জিয়াকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেই থেকে তিনি ঢাকার এই হাসপাতালটিতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এর আগে গত বছরের জুনে এনজিওগ্রাম করা হলে তার হৃদযন্ত্রে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে। সেই সময় এর একটিতে রিং পরানো হয়।

মেডিকেল বোর্ড জানিয়েছে, খালেদা জিয়া দীর্ঘদিন ধরে বাত, ডায়াবেটিস, কিডনি, লিভার ও হৃদরোগে ভুগছেন।

পরিপাকতন্ত্রে রক্তপাতের পাশাপাশি তিনি লিভার সিরোসিসেও ভুগছেন।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া দুর্নীতির মামলায় দণ্ডিত হয়ে ২০১৮ সালে কারাগারে যান।

দেশে করোনাভাইরাস মহামারি শুরুর পর পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০২০ সালের ২৫ মার্চ খালেদা জিয়াকে নির্বাহী আদেশে সাময়িক মুক্তি দেয় সরকার।

About

Popular Links