Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

উকিল আব্দুস সাত্তারের দ্বিতীয় জানাজায় ছিলেন না বিএনপির কেউ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত সংসদ সদস্য হিসেবে জয়লাভ করেন। ২ জানুয়ারি তাকে বিএনপি থেকে বহিষ্কার করা হয়

আপডেট : ০১ অক্টোবর ২০২৩, ০৩:২১ পিএম

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের সংসদ সদস্য উকিল আবদুস সাত্তার ভূঁইয়ার দ্বিতীয় জানাজা সম্পন্ন হয়েছে। এতে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা। তবে বিএনপির পদে থাকা কোনো নেতাকে জানাজায় দেখা যায়নি।

রবিবার (১ অক্টোবর) বাদ জোহর সরাইল অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-১ আসনের সংসদ সদস্য বি এম ফরহাদ হোসেন সংগ্রাম, সংরক্ষিত নারী আসন (৩১২ সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম শিউলী আজাদ, জাতীয় পার্টির সাবেক কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য জিয়াউল হক মৃধা, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুল বারী চৌধুরী মন্টু, বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী শিক্ষক কল্যাণ ট্রাস্টের সদস্য সচিব শাহজাহান আলম সাজু, সরাইল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন ঠাকুরসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার সাধারণ মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

অরুয়াইল ইউনিয়নের পরমানন্দপুর গ্রামে তৃতীয় জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

উল্লেখ্য, ৩০ সেপ্টেম্বর রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তিনি কিডনিজনিত রোগে ভুগছিলেন। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই চিকিৎসা চলছিল। এরই মাঝে শনিবার ভোর ৩টার ৫ মিনিটে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

উকিল আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া ১৯৭৯ সালে তৎকালীন কুমিল্লা-১ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পরবর্তী সময়ে ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ২০০১ সালের নির্বাচনে তৎকালীন চার দলীয় জোট সরকার থেকে টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী হিসেবে আবদুস সাত্তার আইন, মৎস্য ও ভূমি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।

২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি আবারও বিএনপি মনোনীত সংসদ সদস্য হিসেবে জয়লাভ করেন। চলতি বছরের ২ জানুয়ারি তাকে বিএনপি থেকে বহিষ্কার করা হয়। পরে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে জয়লাভ করেন।

About

Popular Links