Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জবির দুই গেটে ছাত্রদলের তালা

বৃহস্পতিবার সকালে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দক্ষিণ পাশের ২ নম্বর ও ৪ নম্বর ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয় ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা

আপডেট : ০২ নভেম্বর ২০২৩, ১১:৫২ এএম

বিএনপির ডাকা তিন দিনের সর্বাত্মক অবরোধ কর্মসূচির তৃতীয় দিনে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) দুটি ফটকে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে শাখা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।

বৃহস্পতিবার (১ নভেম্বর) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের দক্ষিণ পাশের ২ নম্বর ও ৪ নম্বর ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয় তারা।

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাতে অনলাইন সংবাদমাধ্যম বাংলা ট্রিবিউন জানায়, তালা ঝুলিয়ে দেওয়ার পর ফটক দুটি দীর্ঘক্ষণ তালাবদ্ধ অবস্থায় ছিল। পরে সকাল ৮টার দিকে ফটকের তালা ভেঙে যাতায়াত ব্যবস্থার সুযোগ তৈরি করে দেন শিক্ষার্থী ও নিরাপত্তারক্ষীরা। এরপর দ্বিতীয় ফটক দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস ভেতরে প্রবেশ করে।

জবি শাখা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সুজন মোল্ল্যা বলেন, “জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত করা, গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনা, দেশের বিচারব্যবস্থা সংশোধন করা ও সরকার পতনের এক দফা দাবি বাস্তবতাবায়নে চলমান আন্দোলনে ছাত্রদল অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে৷ এর অংশ হিসেবে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গেটে তালা ঝুলিয়ে আমরা জবি শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করেছি।”

শাখা ছাত্রদলের সভাপতি আসাদুজ্জামান  আসলাম বলেন, “এক দফা দাবি আদায় এবং বিএনপির শান্তিপূর্ণ মহাসমাবেশে পুলিশলীগ ও আওয়ামী সন্ত্রাসীদের বর্বর হামলা ও গণ-গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে আমরা অবরোধ পালন করছি। আমি মনে করি এই ফ্যাসিস্ট সরকারের আজ্ঞাবহ প্রশাসন জনগণের স্বার্থ রক্ষার অবরোধকে সমর্থন জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রাখবে।”

প্রসঙ্গত, বিএনপির ডাকা টানা তিন দিনের অবরোধের শেষ দিন আজ বৃহস্পতিবার। গত দুই দিন অবরোধ চলাকালে দেশের বিভিন্ন স্থানে সংঘর্ষ, হামলা, ভাঙচুর, গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবারও বেশ কিছু জায়গায় বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। তবে এই আগুন বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা দিয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করতে পারেনি প্রশাসন।

গত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে সরকার পতনের এক দফা দাবিতে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করে আসছে বিএনপি ও সমমনা দলগুলো। গত ২৮ অক্টোবর ঢাকায় মহাসমাবেশের ডাক দেয় বিএনপি। বিপুল জমায়েত হয় তাদের এই মহাসমাবেশে। সমাবেশ চলাকালে এক পর্যায়ে আওয়ামী লীগ ও পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয় বিএনপি নেতাকর্মীদের। মহাসমাবেশ পণ্ড হলে তারা হরতাল অবরোধ কর্মসূচিতে যায়।

গত রবিবার সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালন করে বিএনপি। এদিন সারাদেশে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশ ও আওয়ামী লীগের সংঘর্ষ বাধে। লালমনিরহাটে এক যুবলীগ নেতার মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। এছাড়া বিপুল পরিমাণ বিএনপি নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

গত ৩১ অক্টোবর শুরু হওয়া টানা অবরোধেও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। নারায়ণগঞ্জে তিন পুলিশ সদস্যকে কুপিয়ে জখম করে বিএনপি নেতাকর্মীরা। অন্যদিকে কিশোরগঞ্জে ও সিলেটে পুলিশ ও আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষে বিএনপির তিনজনের মৃত্যু হয়।

গত ৩১ অক্টোবর থেকে টানা তিন দিনের সড়ক, রেল, নৌপথসহ সর্বাত্মক অবরোধ কর্মসূচি পালন করছে বিএনপি। টানা তিন দিনের অবরোধ শেষে আজ আবার কর্মসূচি ঘোষণা করতে পারে বিএনপি।

About

Popular Links