Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

অবরোধের সমর্থনে রিজভীর নেতৃত্বে মতিঝিলে বিএনপির মিছিল

স্বল্প সময়ের জন্য সড়কে অবস্থান নেয় বিএনপি নেতাকর্মীরা

আপডেট : ১২ নভেম্বর ২০২৩, ১০:১৩ এএম

সরকার পদত্যাগের এক দফা দাবিতে বিএনপি-জামায়াত ও সমমনা দলগুলোর ডাকা চতুর্থ দফার অবরোধ শুরু হয়েছে। রবিবার (১২ নভেম্বর) সকাল ৬টা থেকে শুরু এই অবরোধ চলবে মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত।

অবরোধের প্রথম দিন সকালে রাজধানীসহ সারাদেশে গণপরিবহন প্রায় চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। সকাল থেকে সড়কে বেড়েছে মানুষের উপস্থিতিও। রাজধানীর বিভিন্ন স্কুল-কলেজে যথাসময়ে আসতে দেখা গেছে শিক্ষার্থীদের। অন্যদিকে, নাশকতা ঠেকাতে জনবহুল ও গুরুত্বপূর্ণ সড়কের মোড়ে সতর্ক অবস্থায় রয়েছেন পুলিশ সদস্যরা।

এদিকে প্রথম দিন সকালে অবরোধের সমর্থনে রাজধানীতে মিছিল ও স্বল্প সময়ের জন্য সড়কে অবস্থান নেয় বিএনপি নেতাকর্মীরা।

সকাল সাতটায় মতিঝিল আইডিয়াল স্কুলের সামনে থেকে একটি মিছিল শুরু হয়ে চৌরাস্তার মাথায় গিয়ে শেষ হয়। এতে নেতৃত্ব দেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন— বিএনপির স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রফিকুল ইসলাম, সহ স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. পারভেজ রেজা কাকন, নির্বাহী কমিটির সদস্য মাহবুবুল ইসলাম, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শ্রমিক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন খান, সিদ্দিকুর রহমান মিন্টু, জিল্লুর রহমান খান, শাহবাগ থানার আহ্বায়ক মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, মতিঝিল থানার আহ্বায়ক জেকে লাভলো ডালি, খিলগাঁও থানার আহ্বায়ক মোহাম্মদ আমির হোসেন, মুগদা থানার আহ্বায়ক মো. কুদ্দুস বেপারী, পল্টন পল্টন থানার আহ্বায়ক মো. আবু তাহের প্রমুখ।

অবরোধ কর্মসূচি শুরুর আগে শনিবার রাতে রাজধানীতে ছয়টি বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। রাত ৮টা ২০ মিনিট থেকে সাড়ে ১১টার মধ্যে মতিঝিল, গাবতলী, গুলিস্তান, যাত্রাবাড়ী, আগারগাঁওয়ের তালতলা ও কাফরুল থানা এলাকায় আগুন দেওয়ার এসব ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে গত ২৮ অক্টোবর থেকে ১১ নভেম্বর পর্যন্ত ঢাকায় ৭১টি যানবাহনে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটল। এর মধ্যে যাত্রাবাড়ীতে বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনায় দগ্ধ হয়েছেন একজন যাত্রী।

এছাড়া শনিবার সন্ধ্যা সোয়া সাতটার দিকে রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় দুটি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে এবং রাতে গাজীপুরে একটি ট্রাক ও পিকআপ ভ্যানে আগুন দেওয়া হয়।

হামলা ও সংঘর্ষের মধ্যে ২৮ অক্টোবর ঢাকায় মহাসমাবেশ পণ্ডের প্রতিবাদে ২৯ অক্টোবর সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল দেয় বিএনপি।এরপর দলের নেতাদের গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে এবং সরকারের পদত্যাগের এক দফা দাবিতে ৩১ অক্টোবর থেকে ২ নভেম্বর পর্যন্ত অবরোধ দেয় বিএনপি-জামায়াত ও তাদের সমমনা দলগুলো।দ্বিতীয় দফায় অবরোধ দেওয়া হয় ৫ নভেম্বর সকাল ৬টা থেকে ৭ নভেম্বর সকাল ৬টা পর্যন্ত। এরপর তৃতীয় দফায় অবরোধ দেওয়া হয় ৮ ও ৯ নভেম্বর। 

About

Popular Links