Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

চার মামলায় আমীর খসরুর জামিন

এ নিয়ে ছয়টি মামলায় জামিন পেলেন বিএনপির এই স্থায়ী কমিটির সদস্য

আপডেট : ১৮ জানুয়ারি ২০২৪, ০৪:০৬ পিএম

এবার আরও চার মামলায় জামিন পেলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। বৃহস্পতিবার (১৮ জানুয়ারি) ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতের অ্যাডিশনাল চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (এসিএমএম) তোফাজ্জল হোসেন চার মামলায় আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেন।

আদালত ১০ হাজার টাকা মুচলেকায় পুলিশ প্রতিবেদন দাখিল পর্যন্ত আমীর খসরুর জামিনের আদেশ দেন।

এই মামলাগুলোর মধ্যে দুইটি করে রাজধানীর রমনা ও পল্টন মডেল থানায় দায়ের করা হয়েছিল। এর আগে, গতকাল বুধবার পল্টন থানার পৃথক দুই মামলায় আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন আদালত। এ নিয়ে ছয়টি মামলায় জামিন পেলেন আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

বুধবার আমীর খসরুর উপস্থিতিতে তার আইনজীবী সৈয়দ জয়নুল আবেদীন মেজবাহ জামিন শুনানি করতে প্রোডাকশন ওয়ারেন্ট (পিডব্লিউ) ইস্যুর আবেদন করেন। আদালত শুনানি শেষে আসামির প্রোডাকশন ওয়ারেন্ট জারি করেন এবং তার উপস্থিতিতে বৃহস্পতিবার জামিন শুনানির তারিখ ধার্য করেন।

আমীর খসরুর আইনজীবী সৈয়দ জয়নুল আবেদীন মেজবাহ বলেন, “পৃথক দুই থানায় আট মামলার মধ্যে চারটিতে জামিন পেয়েছেন আমীর খসরু। তবে অন্য চার মামলায় নথি না থাকায় শুনানি হয়নি। আশা করি, সংশ্লিষ্ট আদালতে মামলার নথি এলে জামিন শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।”

বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে আসামিকে কেরানীগঞ্জ কারাগার থেকে আদালতে হাজির করে কারা কর্তৃপক্ষ। এরপর তাকে ঢাকার সিএমএম আদালতের হাজতখানায় রাখা হয়। সেখান থেকে তাকে আদালতের এজলাসে ওঠানো হয় দুপুর ২টার দিকে।

এর আগে, আমীর খসরুর পক্ষের আইনজীবী মহসিন মিয়া, সৈয়দ জয়নুল আবেদীন মেজবাহ জামিন চেয়ে শুনানি করেন। রাষ্ট্রপক্ষ এর বিরোধীতা করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত রমনা থানার দুই ও পল্টন থানার দুই মামলায় জামিনের আদেশ দেন।

গত ২৮ অক্টোবর ঢাকায় বিএনপির মহাসমাবেশ ঘিরে পুলিশের সঙ্গে দলটির নেতা-কর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় করা মামলায় গত ২ নভেম্বর দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে গুলশানের বাসা থেকে আমীর খসরুকে আটক করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। ৩ নভেম্বর তার ছয় দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। ৯ নভেম্বর রিমান্ড শেষে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। এরপর থেকে তিনি কারাগারে রয়েছেন।

আমীর খসরুর আইনজীবীরা জানিয়েছেন, ২৮ অক্টোবরের ঘটনাকে কেন্দ্র করে আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে ১০টি মামলা হয়।

About

Popular Links