Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জিএম কাদের: সবাই সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছে, তবে জবাবদিহিতা নেই

জাতীয় পার্টির মধ্যে বিভেদ সৃষ্টিতে সরকারের প্রচ্ছন্ন ভূমিকা রয়েছে বলে মনে করেন তিনি

আপডেট : ০৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:৪০ পিএম

সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেছেন, “পাহাড়ে যে অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে এজন্য সরকারের প্রস্তুতি থাকা উচিত ছিল। সরকারের সব বাহিনীর জাঁকজমক আছে, সব কিছুই তাদের আছে; সুযোগ-সুবিধাও আছে। তবে কাজের ব্যাপারে জবাবদিহিতা নেই।”

রবিবার (৭ এপ্রিল) বিকেলে রংপুর সার্কিট হাউজে সাংবাদিকদের সঙ্গে মত বিনিময়কালে এসব কথা বলেন তিনি। এর আগে, ঢাকা থেকে রংপুর পৌঁছান তিনি। 

জিএম কাদের বলেন, “যাকে যে দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে তাদের সেই দায়িত্ব পালনে উদাসীনতা লক্ষ্য করা যায়। এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। আমরা মনে করি, সামান্য ঘটনায় যদি সরকারকে হিমশিম খেতে হয়, তাহলে বড় ধরনের বিপদ হলে আমরা কোথায় গিয়ে দাঁড়াব। সে কারণে যেভাবেই বলি না কেন- দেশে সুশাসনের অভাব আছে। কারণ হলো জবাবদিহিতা নেই। যেখানে জবাবদিহিতা থাকে সেখানে গণতন্ত্র থাকে।”

তিনি বলেন, “পাহাড়ে বিশেষ করে বান্দরবানে কুকি-চিন যেসব কর্মকাণ্ড করছে এবং করেছে তারা যে পর্যায়ে চলে গেছে এটা ক্রিমিনাল অ্যাক্টিভিটি এবং সন্ত্রাসী কার্যকলাপ। এ ধরনের কর্মকাণ্ড কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। পুরো বিষয়টিকে শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে সরকারকে দেখতে হবে।”
 
তিনি আরও বলেন, “তারা আত্মসমর্পণ করে আলোচনার টেবিলে গেলেও কোনো লাভ হবে না। তারা যদি সেই অবস্থানে থাকতো তাহলে আমাদের কাছে গ্রহণযোগ্য হতো। এখন সার্বিকভাবে সরকারের দায়িত্ব হচ্ছে জনগণের নিরাপত্তা বিঘ্নিত না হয় বা আস্থাহীনতা তৈরি না হয়- সেটা দেখার দায়িত্ব সরকারের।”

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে জিএম কাদের বলেন, “পাহাড়ি অঞ্চলে এ মুহূর্তে সাধারণ মানুষের মাঝে আস্থাহীনতার সৃষ্টি হয়েছে। সাধারণ মানুষ সেখানে ব্যবসা-বাণিজ্য করতে চায়, এছাড়া যারা সেখানে ইনভেস্ট করতে চায় বা যারা বেড়াতে যেতে চায়- সবাই এখন পিছপা হচ্ছে। এসব কর্মকাণ্ড তো আমাদের সমাজের জন্য মঙ্গলজনক নয়।”

পাহাড়ি অঞ্চল ছাড়াও সারা দেশে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যর্থ উল্লেখ করে তিনি বলেন, “মানুষের হাত-পা কেটে দেওয়া হচ্ছে, মানুষ হত্যা করা হচ্ছে। বাচ্চা ছেলেদের শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হচ্ছে, দেশে অশান্তি চলছে। যার যেটা দায়িত্ব সেটা পালন করতে পারছে না। বাস-ট্রেন দুর্ঘটনা হচ্ছে, মানুষ মারা যাচ্ছে। এটা এখন দুর্ঘটনা নয়, স্বাভাবিক বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।”

জাতীয় পার্টির অভ্যন্তরীণ কোন্দল নিয়ে তিনি বলেন, “প্রত্যক দলের একটি গঠনতন্ত্র থাকে। তাদের নির্বাচন কমিশন থেকে দলের নিবন্ধন নিতে হয়। কিন্তু একই দলের প্রতীক-লোগো ব্যবহার করে বিভিন্ন সমাবেশ করা বেআইনি। এতেই প্রমাণিত হয় জাতীয় পার্টির মধ্যে বিভেদ সৃষ্টির পেছনে সরকারের প্রচ্ছন্ন ইঙ্গিত রয়েছে।”

About

Popular Links