Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

'নারায়নগঞ্জে নাটকবাজি চলবে না', পুলিশের উদ্দেশে শামীম ওসমান

"বাংলাদেশের প্রশাসনের মধ্যে কে কোন দল করে সেটি দেখার বিষয় না। কার কি কোয়ালিটি সেটি দেখতে হবে।"

আপডেট : ২৭ মার্চ ২০১৯, ০৮:০৩ পিএম

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান পুলিশ প্রশাসনের সমালোচনা করে বলেছেন, "আজকে মন্ত্রী, এমপি না থাকি, তাহলে ফুল তো দূরের কথা, পুলিশ দৌঁড়িয়ে পানিতে নামাবে। মারলো কে ২১ বছর আমাদের? সবই তো দেখি আমাদের। ওইসব নাটকবাজি অন্য জায়গায় চলবে, নারায়ণগঞ্জে না। এটা মাথায় রাখতে হবে।"

বুধবার (২৭ মার্চ) বিকেলে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদ চত্ত্বরে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও চেক প্রদান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলে। জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী (বীর প্রতীক)।

শামীম ওসমান বলেন, আমার কাছে জানি কেন মনে হয় সব যখন একদিকে দৌঁড় দেয় তখন কোথাও একটা ভ্যাকুয়াম (ফাঁকা জায়গা) তৈরি হয়। বাংলাদেশের প্রশাসনের মধ্যে কে কোন দল করে সেটি দেখার বিষয় না। কার কি কোয়ালিটি সেটি দেখতে হবে। সৎ না দুর্নীতিবাজ সেগুলো আগে দেখতে হবে। এখন দেখি সব আমি এইটা, আমি ওইটা, এই দল করতাম, ওই দল করতাম এগুলি চালু হয়ে গেছে। এগুলোকে বলা হয় ভ্যাকুয়াম। '৭৫ এর আগেও এগুলি চালু হয়ে গিয়েছিল। ভ্যাকুয়াম বেশি হয়ে গেলে শাহ আজিজের চেয়ে খন্দকার মোশতাকের মতো বেশি বিপজ্জনক হয়ে যায়। ঠিক সময় মতো খন্দকার মোশতাকরা ছোঁবল মারে।

তিনি আরও বলেন, মন্ত্রী গাজীর প্রতি অনুরোধ থাকবে, আমরা আওয়ামী লীগে সব এক আছি। দলকে আগে মূল্যায়ন করতে হবে। নারায়ণগঞ্জের সম্মানিত ব্যক্তিদের নিয়ে, জনগণের প্রতিনিধিদের কেউ যদি অসম্মান করে কোথাও কিছু বলার চেষ্টা করে তবে কেউ না কারুক আমি শামীম ওসমান প্রতিবাদ করবো।  

দলের ভেতরে মোশতাকদের সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করে শামীম ওসমান বলেন, আওয়ামী লীগ নিজের উপর ভরসা করেই রাজনীতি করে। নারায়ণগঞ্জের পবিত্র মাটিতে গোলাম আজমকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করেছিলাম। একথা বলার অপরাধে আমাদের উপর বোমা ফেলা হয়েছিল। আমাদের বিশটা ভাইকে মেরে ফেলা হয়েছিলো। 

শামীম ওসমান বলেন, নারায়ণগঞ্জে ভালো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চাই। আগের প্রাচ্যের ডান্ডি পেতে চাই।একটা পরিপূর্ণ নারায়ণগঞ্জকে রেখে যেতে চাই। আমরা কাজ করতে চাই মানুষের জন্য। মানুষ মাদক বিক্রি, চাঁদাবাজি চায়না। মানুষ এটা দেখতে চায়না যে সরকারি কর্মকর্তা রাস্তায় গাড়ি দাঁড় করিয়ে টাকা নেয়। মানুষ সুশাসন চায়। মানুষ নিরাপত্তা চায়, শান্তিতে ঘুমুতে চায়, শান্তিতে মরতে চায়। 

জেলা পরিষদের প্যানেল মেয়র মাহমুদা মালার উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সাংসদ নজরুল ইসলামবাবু, সংরক্ষিত মহিলা আসন-২২ এর সাংসদ ফজিলাতুন্নেসা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই, সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সভাপতি মোহাম্মদ আলী, জাতীয় শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কাউসার আহমেদ পলাশ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদের অন্যতম সদস্য অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা, জেলা যুবলীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবদুল কাদির, জেলা পরিষদ সদস্য মুজিবুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।  

About

Popular Links