Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ইনজুরি ও প্রতিকূলতা টপকে রিয়ালের স্প্যানিশ সুপারকাপ জয়

দ্বাদশবারের মতো স্প্যানিশ সুপার কাপ জেতার মাধ্যমে ১৮ মাসের শিরোপা খরা কাটালো লস ব্লাঙ্কোসরা

আপডেট : ১৭ জানুয়ারি ২০২২, ০৪:৪৩ পিএম


২০২০ সালে লা লিগা শিরোপা জয়ের মাধ্যমে সর্বশেষ ট্রফি জিতেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। এরপর গুনে গুনে ৫৪৯ দিন পেরিয়ে গেলেও আর ট্রফির দেখা পায়নি স্প্যানিশ ক্লাবটি। তবে রবিবার (১৬ জানুয়ারি) অ্যাথলেটিক বিলবাওকে ২-০ গোলে পরাজিত করে দ্বাদশ স্প্যানিশ সুপার কাপ জেতার মাধ্যমে ১৮ মাসের শিরোপা খরা কাটালো লস ব্লাঙ্কোসরা।

স্প্যানিশ সুপার কাপের জন্য সৌদি আরব যেন এক পয়মন্ত ভেন্যু হিসেবেই আবির্ভূত হয়েছে রিয়ালের জন্য। ২০২০ সালের জানুয়ারিতে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটিতেই এর আগে সর্বশেষ স্প্যানিশ সুপার কাপ জিতেছিল তারা।

তবে সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদের কিং ফাহাদ আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে মাঠে নামার আগে রিয়ালের সামনে ছিল ইনজুরির বাধা। রাইটব্যাক দানি কার্ভাহাল কোভিড আক্রান্ত হয়ে আর উইঙ্গার মার্কো অ্যাসেন্সিও ইনজুরিতে পড়ে ফাইনাল থেকে ছিটকে যান।

অ্যাথলেটিক বিলবাও ছাড়াও রিয়ালের আরেক প্রতিপক্ষ ছিল তাদের বিরুদ্ধে কাপ ফাইনালে রিয়ালের করুণ ইতিহাস। বাস্ক ক্লাবটির বিরুদ্ধে রিয়াল মাদ্রিদ সর্বশেষ কোনো কাপ ফাইনাল জিতেছিল ১৯০৬ সালে। এরপর আরও পাঁচবার তাদের মুখোমুখি হলেও কোনোবারই শেষ হাসি হাসতে পারেনি মাদ্রিদের ক্লাবটি।

তবে স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালে ইনজুরি কিংবা প্রতিকূল ইতিহাস কোনোটিই বাধা হতে পারেনি রিয়ালের সামনে। মার্কো অ্যাসেন্সিওর জায়গায় রাইট উইঙে জায়গা করে নেওয়া রদ্রিগো গোয়েসই ছিলেন রিয়ালকে এগিয়ে দেওয়ার কারিগর। ম্যাচের ৩৮ মিনিটে গতি দিয়ে বিলবাও ডিফেন্সকে ছিন্নভিন্ন করে তরুণ ব্রাজিলিয়ান উইঙ্গার বল বাড়িয়েছিলেন প্রতিপক্ষ ডি-বক্সের মাথায় লুকা মডরিচের সামনে। নিখুঁত ফিনিশিংয়ের মাধ্যমে বল জালে জড়াতে কোনো ভুল করেননি ৩৬ বছর বয়সী ক্রোট মিডফিল্ডার। প্রথমার্ধ শেষে ১-০ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় লস ব্লাঙ্কোসরা।





মধ্যবিরতির পর ৫২ মিনিটে অধিনায়ক পেনাল্টি থেকে অধিনায়ক করিম বেনজেমার গোলে লিড দ্বিগুণ করে রিয়াল। রাইটব্যাক লুকাস ভাসকেজের বাড়ানো বলে ফ্রেঞ্চ স্ট্রাইকার গোলমুখে শট নিলেও তা হাত দিয়ে অবৈধভাবে বাধা দেন বিলবাও ডিফেন্ডার ইয়েরে আলভারেজ। ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির (ভিএআর) সহায়তায় পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। গোললাইন থেকে ১২ ইঞ্চি দূর খেকে নেওয়া স্পট কিক থেকে গোল করতে কোনো ভুল করেননি বেনজেমা।







২-০ গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর সাবধানী ফুটবল খেলা শুরু করে কার্লো অ্যানচেলত্তির শিষ্যরা। তবে তাতে ম্যাচে রিয়ালের আধিপত্য খর্ব হয়নি। ম্যাচের প্রায় পুরোটা সময়েই দাপট চালিয়ে যাওয়া রিয়ালের বিপক্ষে অ্যাথলেটিক বিলবাও গোলের সুযোগ পেয়েছিল ম্যাচের শেষদিকে। ৮৬ মিনিটে রিয়ালের ব্রাজিলিয়ান সেন্টারব্যাক নিজ দলের ডি-বক্সে হ্যান্ডবল করে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়লে ১০ জনের দলে পরিণত হয় লস ব্লাঙ্কোসরা। কিন্তু অ্যাথলেটিক বিলবাও ফরোয়ার্ড রাউল গার্সিয়ার নেওয়া পেনাল্টি দুর্দান্তভাবে ঠেকিয়ে দেন রিয়াল গোলরক্ষক থিবো কর্তোয়া। শেষ পর্যন্ত ২-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে দলটি।






রিয়ালের এ শিরোপাটি ম্যাচে বদলি হিসেবে নামা দলের মূল অধিনায়ক মার্সেলোর জন্যও বিশেষ কিছু। স্প্যানিশ সুপার কাপের ট্রফি জেতার মাধ্যমে ক্লাবের হয়ে সর্বোচ্চ ২৩টি শিরোপা জয়ের রেকর্ডে কিংবদন্তি ফ্রান্সিস্কো গেন্তোর পাশে বসেছেন ব্রাজিলীয় ফুলব্যাক।

About

Popular Links