Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে সেমিফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখলো পাকিস্তান

আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম দুই ম্যাচে ভারত এবং জিম্বাবুয়ের কাছে হেরে পাকিস্তানের সেমিফাইনাল খেলার সম্ভাবনা অনেকটাই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল

আপডেট : ০৩ নভেম্বর ২০২২, ০৬:৫২ পিএম

আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম দুই ম্যাচে ভারত এবং জিম্বাবুয়ের কাছে হেরে পাকিস্তানের সেমিফাইনাল খেলার সম্ভাবনা অনেকটাই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল। তৃতীয় ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে জিতলেও পাকিস্তানের সামনে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে জয়ের বিকল্প ছিল না। সিডনিতে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ডাকওয়ার্থ লুইস মেথডে ৩৩ রানের জয় তুলে নিয়ে শেষ চারের আশা বাঁচিয়ে রাখলো পাকিস্তান।

শুরুতে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামলেও পাকিস্তানের টপ অর্ডার পুরোপুরি ব্যর্থ ছিল এদিন। দলের স্কোর এক সময় ছিল ১৩ ওভারে ৫ উইকেটে ৯৫। সেখান থেকেই তাদের ১৮৫ পর্যন্ত টেনে তোলে শাদাবের ২২ বলে ৫২ ও ইফতিখার আহমেদের ৩৫ বলে ৫১ রানের ইনিংস।

প্রোটিয়াদের হয়ে ৪১ রানে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট আইনরিখ নর্কিয়ার। একটি করে নিয়েছেন ওয়েইন পারনেল, কাগিসো রাবাদা, লুঙ্গি এনগিদি ও তাবরেইজ শামসি।

রান তাড়ায় শুরুতে উইকেট হারালেও টেম্বা বাভুমা ও এইডেন মার্করামের তৃতীয় উইকেট জুটিতে ভালোভাবেই এগোচ্ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। নিজের প্রথম ওভারে এসেই এরপর জোড়া আঘাত করেন শাদাব। বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হওয়ার সময় ডিএলএসে পিছিয়ে পড়া দক্ষিণ আফ্রিকার নতুন লক্ষ্য ছিল ১৪ ওভারে ১৪২, ৩০ বলে তাই প্রয়োজন ছিল ৭২ রান। বিরতির পর প্রথম ১০ বলে ২৫ রান তুললেও এরপর পাকিস্তান পেসারদের সঙ্গে পেরে ওঠেনি দক্ষিণ আফ্রিকা, আটকে গেছে ১০৮ রানেই।

শাহীন আফ্রিদি ১৪ রানে ৩ উইকেট নিয়েছেন। ১৬ রানে দুটি উইকেট নেন শাদাব খান। ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিতে অবদান রাখায় ম্যাচসেরাও তিনি। একটি করে উইকেট নিয়েছেন নাসিম, হারিস, ওয়াসিম। 

বৃষ্টি শুরুর আগে বড় রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ঝড় তোলেন টেম্বা বাভুমা। তবে সেই ঝড় বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। শেষ তিন ম্যাচের ব্যর্থ এই ব্যাটার এদিন খোলোস ছেড়ে যেনো বেরিয়ে আসেন। ৪ চারের সঙ্গে ১ ছয়ে ১৯ বলে ৩৬ রান করে ফিরে যান এই অধিনায়ক। তবে এদিন ব্যাট হাতে ব্যর্থ হন ডি কক এবং রাইলি রুশো। মাঝের সময় এইডেন মার্করাম প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করলেও ২০ রানে তিনি ফিরে যান। ৮ ওভারের মধ্যে ৬৯ রানে পড়ে ৪ উইকেট। 

বৃষ্টির পর ওভার কমে গেলে তখন চাপটাও বাড়ে আরও। সেই চাপে পিষ্ট হয়ে তারা আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি। হাইনরিখ ক্লাসেন ও ত্রিস্টান স্টাবসের ওপর অনেক কিছু নির্ভর করলেও প্রত্যাশা মেটাতে পারেননি। ক্লাসেন ১৫ রানে ফিরেছেন। তার পর একে একে সাজঘরে ফিরেছেন ওয়েইন পারনেল (৩), ত্রিস্টান স্টাবস (১৮)। দক্ষিণ আফ্রিকা ১৪ ওভারে ৯ উইকেটে করেছে ১০৮।

About

Popular Links