Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ফুটবল বিশ্বকাপের ‘গ্রুপ ডি’, বিশ্বকাপজয়ী ফরাসিদের গ্রুপসঙ্গী কারা

এই গ্রুপে বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের সঙ্গে রয়েছে ডেনমার্ক, অস্ট্রেলিয়া এবং তিউনিসিয়া

আপডেট : ০৭ নভেম্বর ২০২২, ০৫:৩৮ পিএম

আর মাত্র ১২ দিন পরেই শুরু হচ্ছে ফিফা বিশ্বকাপের ২২তম আসর। বিশ্বকাপ ফুটবলের এবারের আসর বসছে কাতারে। এর মাধ্যমে ২০০২ সালের পর প্রথমবারের মতো এশিয়া মহাদেশে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ফুটবলের বিশ্বযজ্ঞ।

২০২৬ সালে অনুষ্ঠিতব্য পরবর্তী বিশ্বকাপ থেকে ৪৮টি দল অংশ নেবে। তাই প্রতি গ্রুপে ৪টি দেশসহ ৮টি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে ৩২টি দলের অংশগ্রহণে এবারেই শেষবারের মতো বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

কাতার বিশ্বকাপের দলগুলো নিয়ে আলোচনা চলছে অনেকদিন ধরেই। স্বাগতিক কাতার ব্যতিত বাকি ৩১টি দল অনেক রোমাঞ্চ, নাটক আর চমকপ্রদ ঘটনাবহুল বাছাইপর্ব শেষে এবারের বিশ্বকাপের মূল পর্বে জায়গা করে নিয়েছে।

কাতার বিশ্বকাপের ৩২ দল ব্লেচার রিপোর্ট ফুটবল/ফেসবুক

গত মার্চে আয়োজক কাতারের রাজধানী দোহায় এক জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ২০২২ বিশ্বকাপ ফুটবলের ড্র অনুষ্ঠিত হয়। তখনকার ফিফা র‍্যাংকিং অনুযায়ী, স্বাগতিক কাতারের সঙ্গে র‍্যাংকিংয়ের বিচারে প্রথম ৭ দলকে শীর্ষ বাছাই হিসেবে পট-১ এ রাখা হয়।

র‍্যাংকিংয়ের পরের ৮ দলকে পট-২ এবং পরের ৮ দলকে পট-৩ এ রাখা হয়। ফিফা র‍্যাংকিংয়ের পরের ৫ দল এবং বাকি থাকা তিন প্লে-অফ বিজয়ীদের রাখা হয় ৪ নম্বর পটে। নিয়ম অনুযায়ী, ইউরোপ ব্যতিত আর কোনো মহাদেশেরই দুটি দল একই গ্রুপে পড়েনি।

বিশ্বকাপের প্রতি আসরের গ্রুপপর্বের ড্রয়ের পর থেকেই কোন গ্রুপটি মৃত্যুকূপ অর্থাৎ গ্রুপ অব ডেথ কিংবা কোন গ্রুপ সবচেয়ে অনুমানযোগ্য, সেটি নিয়ে বিশ্লেষণ চলে। ব্যতিক্রম হয়নি এবারেও। সেক্ষেত্রে বিভিন্ন গ্রুপ নিয়ে অনেকেরই ভিন্নমত থাকতে পারে।

কাতার বিশ্বকাপের কোন গ্রুপে কোন দল রয়েছে আর কোন গ্রুপ কেমন হলো, তা নিয়ে ধারাবাহিকভাবে আলোচনা করা হবে। সেই ধারাবাহিকতায় আজ রয়েছে “ডি” গ্রুপ নিয়ে পর্যালোচনা। এই গ্রুপে পড়েছে বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স, ডেনমার্ক, অস্ট্রেলিয়া এবং তিউনিসিয়া।

ফ্রান্স

আন্তর্জাতিক ফুটবলে গত কয়েক বছর ধরে যে দলটির স্কোয়াড ডেপথ সবচেয়ে ভালো, সেটি হচ্ছে ফ্রান্স। বেঞ্চে বসে থাকা বিকল্প খেলোয়াড়দের নিয়েও অনায়াসে একটি সমীহ জাগানিয়া দল গড়া যাবে। এই দুর্দান্ত স্কোয়াড ডেপথের বদৌলতেই চার বছর আগে রাশিয়ায় ফিফা বিশ্বকাপের সোনালী ট্রফি উঁচিয়ে ধরেছিল ফরাসিরা।

ইউরোপিয়ান অঞ্চলের বাছাইপর্ব থেকে অপরাজিত হিসেবেই কাতার বিশ্বকাপের টিকিট পেয়েছে ফ্রান্স। তবে শিরোপা ধরে রাখার মিশনে নামার আগে চোট এবং মাঠের বাইরের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সমস্যায় জর্জরিত লেস সব্লুজরা। সেই সঙ্গে গত কয়েক আসরে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের গ্রুপপর্ব থেকে বিদায় নেওয়ার গেরোও থাকছে প্রতিপক্ষ হিসেবে।

বলে রাখা ভালো, দুই দশক আগে এশিয়া মহদেশে আয়োজিত প্রথম বিশ্বকাপেও ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন হিসেবে এসেছিল ফ্রান্স। তবে সেবার জয় পাওয়া দূরে থাক, কোনো গোলই করতে পারেনি ফরাসিরা। ফলে প্রথম রাউন্ড থেকেই হতাশাজনকভাবে বিদায় নিতে হয়েছিল ফরাসিদের।

শিরোপা ধরে রাখার লড়াইয়ে নামার আগে ফ্রান্সের অবস্থা বেশ নড়বড়ে/টুইটার

১৯৬২ সালে ব্রাজিলের পর প্রথম দল হিসেবে বিশ্বকাপ শিরোপা ধরে রাখার লক্ষ্যে ফিফা র‍্যাংকিংয়ের তিনে থাকা ফ্রান্সের স্বপ্নসারথী হতে যাচ্ছেন দুজন। একজন করিম বেনজেমা এবং অন্যজন কিলিয়ান এমবাপ্পে। প্রায় ৬ বছরের নির্বাসনে পর গত বছর জাতীয় দলে ফিরেই দারুণ ছন্দে রয়েছেন সদ্য ব্যালন ডি অর জেতা বেনজেমা। অন্যদিকে, গত বিশ্বকাপে ৪ গোল করে সেরা উদীয়মান খেলোয়াড় হওয়া এমবাপ্পেও আছেন দলের আক্রমণভাগের কেন্দ্র হিসেবে।

আগামী ২২ নভেম্বর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে কাতার বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করবে ফরাসিরা। কাকতালীয়ভাবে, ফ্রান্সের ২০১৮ বিশ্বকাপ জয়ের শুরুটাও হয়েছিল অস্ট্রেলীয়দের বিপক্ষেই। পরবর্তীতে ২৬ নভেম্বর ডেনমার্ক এবং ৩০ নভেম্বর তিউনিসিয়ার মুখোমুখি হবে দুবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

ডেনমার্ক

কাতারে নিজেদের ইতিহাসে ষষ্ঠবারের মতো ফিফা বিশ্বকাপে অংশ নিতে যাচ্ছে ডেনমার্ক। এর আগে মাত্র পাঁচবার ফুটবলের বিশ্বমঞ্চে অংশগ্রহণ করে চারবারই গ্রুপপর্বের বৈতরণী পার হয়েছে ডেনিশরা। এর মধ্যে ১৯৯৮ বিশ্বকাপে তারা পা রেখেছিল কোয়ার্টার ফাইনালেও, যেটি এখন পর্যন্ত টুর্নামেন্টে তাদের সেরা সাফল্য।

ইউরোপিয়ান অঞ্চলের বাছাইপর্বে নিজেদের গ্রুপে সবার ওপরে থেকেই কাতার বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ নিশ্চিত করেছে ডেনমার্ক। এ বছরের উয়েফা নেশন্স লিগের সেমিফাইনালে জায়গা করে নিতে না পারলেও কাতার বিশ্বকাপের গ্রুপসঙ্গী ও বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন্স ফ্রান্সের বিপক্ষে দুটি জয় পেয়েছে তারা।

ডেনমার্ক জাতীয় ফুটবল দলইনস্টাগ্রাম

বর্তমানে ফিফা র‍্যাংকিংয়ের দশে থাকা ডেনমার্ককে কাতার বিশ্বকাপে ডার্ক হর্স হিসেবে বিবেচনা করছে অনেকেই। ডেনিশদের ভরসা হয়ে উঠবেন ক্রিস্টিয়ান এরিকসেন। গত বছর ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ চলাকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হন ৩০ বছর বয়সী এই মিডফিল্ডার। তবে নিজের অদম্য ইচ্ছে আর সবার ভালোবাসায় ঠিকই আবার মাঠে ফিরেছেন তিনি।

আগামী ২২ নভেম্বর তিউনিসিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে ডেনমার্কের কাতার বিশ্বকাপ অভিযান শুরু হবে। পরবর্তীতে ২৬ নভেম্বর ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স এবং ৩০ নভেম্বর অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে মাঠে নামবে জার্সির মাধ্যমে স্বাগতিক কাতারের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রতিবাদ জানানোর পরিকল্পনা রাখা ডেনিশরা।

অস্ট্রেলিয়া

অস্ট্রেলিয়া যদিও এশিয়া মহাদেশের দেশ না। তবে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের (এএফসি) সদস্য হওয়ায় এশিয়া মহাদেশের দেশ হিসেবেই আসন্ন বিশ্বকাপে অংশ নেবে অস্ট্রেলীয়রা। আর এর মাধ্যমে কাতারে অনুষ্ঠিতব্য ২০২২ বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো এশিয়া মহাদেশের ৬টি দেশ অংশ নিতে যাচ্ছে।

কাতার বিশ্বকাপের টিকিট পেতে অবশ্য বেশ ঘাম ঝরাতে হয়েছে অস্ট্রেলিয়াকে। এশিয়ান অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের দ্বিতীয় পর্বে সরাসরি সুযোগ পেয়ে কোনো হারের মুখ দেখেনি তারা। কিন্তু তৃতীয় পর্বে সেই ছন্দ ধরে রাখতে না পারায় সৌদি আরব এবং জাপানের পেছনে থাকে সকারুরা। ফলে অস্ট্রেলিয়া সরাসরি কাতার বিশ্বকাপে অংশগ্রহণের সুযোগ হারায় তারা।

পেরুকে হারিয়ে কাতার বিশ্বকাপে জায়গা করে নেওয়ার পর অস্ট্রেলিয়ার উল্লাস/টুইটার

এশিয়া মহাদেশে আয়োজিত দ্বিতীয় বিশ্বকাপে পা রাখতে তাই অস্ট্রেলিয়াকে দুই ধাপের প্লে-অফ খেলে আসতে হয়েছে। গত জুনে এশিয়ান অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের প্লে-অফে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ২-১ গোলে পরাজিত করে অস্ট্রেলিয়া। এক সপ্তাহ পর আন্তঃমহাদেশীয় প্লে-অফে টাইব্রেকারে পেরুকে পরাজিত করে ষষ্ঠবারের মতো ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ নিশ্চিত করে অস্ট্রেলিয়ানরা।

আগামী ২২ নভেম্বর কাতার বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের বিরুদ্ধে লড়বে বর্তমানে ফিফা র‍্যাংকিংয়ের ৩৮-এ থাকা অস্ট্রেলিয়া। এরপর ২৬ নভেম্বর তিউনিসিয়া এবং ৩০ নভেম্বর ডেনমার্কের মুখোমুখি হবে সকারুরা।

তিউনিসিয়া

এর আগে নিজেদের ফুটবল ইতিহাসে পাঁচবার ফিফা বিশ্বকাপে অংশ নিলেও কখনোই প্রথম রাউন্ডের গণ্ডি পেরোয়নি তিউনিসিয়া। বর্তমানে ফিফা র‍্যাংকিংয়ের ত্রিশে থাকা কার্থেজের ঈগলরা এবারে সেই ভাগ্য বদলাতে পারবে কি-না, তা সময়ই বলে দেবে। যদিও কাগজে-কলমে সম্ভাবনাটা ক্ষীণই।

কাতার বিশ্বকাপে অবশ্য তিউনিসিয়া সরাসরি জায়গা করে নিয়েছে। কনক্যাকাফ অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের দ্বিতীয় পর্বে সরাসরি সুযোগ পেয়ে নিজেদের গ্রুপে সবার ওপরেই ছিল তিউনিসিয়া। পরবর্তীতে তৃতীয় পর্বে মালিকে ১-০ গোলে হারিয়ে কাতার বিশ্বকাপের টিকিট কাটে তিউনিসরা।

তিউনিসিয়া ফুটবল দল/সংগৃহীত

আগামী ২২ নভেম্বর ডেনমার্কের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে ডেনমার্কের কাতার বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করবে তিউনিসিয়া। গ্রুপপর্বে নিজেদের পরের দুই ম্যাচে ২৬ নভেম্বর অস্ট্রেলিয়া এবং ৩০ নভেম্বর বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের বিরুদ্ধে লড়বে আফ্রিকান দেশটি।

About

Popular Links