Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বেইমানি করেছে ম্যানইউ, অভিযোগ সিআর সেভেনের

রোনালদো বলেন, ‘শুধু কোচই নন, ক্লাবের আরও দুই–তিনজন ব্যক্তি আমাকে বের করে দিতে চেয়েছেন। আমি বিশ্বাসঘাতকতার শিকার হয়েছি’

আপডেট : ১৪ নভেম্বর ২০২২, ১০:৩৬ এএম

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের একাদশ মাঠে নামলেও বেঞ্চে বসে থাকবেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের সদ্য শেষ হওয়া মৌসুমে এ দৃশ্যটা মোটামুটি নিয়মিতই ছিল। বেশিরভাগ ম্যাচে তাকে দ্বিতীয়ার্ধে বদলি হিসেবে মাঠে নামনো হচ্ছিল। তবে গত ১৯ অক্টোবর রাতে টটেনহ্যাম হটস্পার্সের বিপক্ষে জুটল না সেটাও। এদিন ম্যাচে তিনটি বদল আনলেও এদিন রোনালদোকে মাঠে নামাননি কোচ এরিক টেন হাগ। তাই অনেকটা রেগে গিয়েই মাঠ ছাড়েন খেলা শেষ হওয়ার আগে।

এপরর চেলসির বিপক্ষে পরবর্তী গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের স্কোয়াড থেকেই বাদ দেওয়া হয় এ পর্তুগিজ তারকাকে। 

এর আগেও গত আগস্টে প্রাক-মৌসুমের একটি ম্যাচে টেন হাগের অধীনে একই কাণ্ড করেছিলেন রোনালদো। রায়ো ভায়েকানোর বিপক্ষে ম্যাচের প্রথম ৪৫ মিনিট খেলানোর পর দ্বিতীয়ার্ধে তাকে বদল করেন টেন হাগ। যে কারণে ম্যাচ শেষ হওয়ার আগেই মাঠ ছাড়েন এ পর্তুগিজ তারকা।

সব মিলে সি আর সেভেন যে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে বঞ্ছনার স্বীকার হচ্ছিলেন সেটা অনুমেয়ই ছিল। এবার সে বিষয়ে সরাসরি মুখ খুললেন রোনালদো।

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তার সঙ্গে বেইমানি করেছে বলে অভিযোগ রোনালদোর। 

ব্রডকাস্টার পিয়ার্স মরগানের সঙ্গে একটি সাক্ষাত্কারে এমন মন্তব্য করেন রোনালদো। সেখানে ম্যানইউ কোচ টেন হাগ এবং অন্তর্বর্তী কোচ রাল্ফ রাঙ্গনিকের সমালোচনাও করেন তিনি। “পিয়ার্স মরগান আনসেন্সরড” নামের অনুষ্ঠানটি বুধ ও বৃহস্পতিবার দুটি পর্বে টকটিভিতে প্রচার হবে।

সাকাৎকারে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো জানান, যে টেন হাগ তাকে  সম্মান করেনি। তাই তিনিও হাগকে সম্মান করেন না।

তিনি বলেন, "আপনি যদি আমার প্রতি সম্মান না রাখেন তবে আমি কখনোই আপনাকে সম্মান করতে পারব না।"

রোনালদোর অভিযোগ, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ম্যানেজার গ্রীষ্মে মৌসুমে তাকে জোর করে দলের বাইরে রাখার চেষ্টা করেছিলেন। শুধু ক্লাব কর্মকর্তা নন, সতীর্থদের কাছ থেকে বঞ্চনার স্বীকার হয়েছেন বলে ইঙ্গিত দেন সি আর সেভেন।

রোনালদো বলেন, “আমি এসবকে পাত্তা দিই না। মানুষের সত্যিটা শোনা দরকার। হ্যাঁ, আমার মনে হয়েছে বিশ্বাসঘাতকতা হচ্ছে। মনে হয়েছে, কিছু মানুষ চায় না, আমি এখানে থাকি। শুধু এ বছর না, গত বছরও তারা এ রকমই চেয়েছিল।”

২০০৯ সালে ওল্ড ট্রাফোর্ড ছাড়ার পর রোনালদো রিয়াল মাদ্রিদ ও জুভেন্টাস হয়ে ২০২১ সালে আবার ইউনাইটেডে ফেরেন। মূলত জুভেন্টাস ছেড়ে ম্যানচেস্টার সিটিতে যাওয়ার কথা ছিল তার। তবে শেষ মুহূর্তে ইউনাইটেডের কিংবদন্তি কোচ স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসনের ফোন পেয়ে ওল্ড ট্রাফোর্ডে ফেরেন তিনি। রোনলাদো বলেন, “তিনি আমাকে বললেন, ম্যানচেস্টার সিটিতে যাওয়াটা অসম্ভব। আমি বললাম, ঠিক আছে, বস। আমি তখন হৃদয়ের ডাক শুনেছি।”

তবে এক যুগ পর ক্লাবে ফিরে নতুন কিছুই পাননি জানিয়ে পাঁচবারের ব্যালন ডি'অরজয়ী বলেন, “স্য‘র অ্যালেক্স চলে যাওয়ার পর কোনো উন্নতিই হয়নি। কিছুই বদলায়নি। ক্লাবটি যে এমন থাকার কথা না, এটা তিনি ভালো করেই জানেন।”

About

Popular Links