Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

গ্রুপপর্ব থেকে জার্মানি বিদায় নিলেও কোচের আসন ছাড়বেন না ফ্লিক

কোস্টারিকার বিরুদ্ধে জিততে না পারলে বিশ্বকাপ ইতিহাসে প্রথমবারের মতো টানা দুবার গ্রুপপর্ব থেকে বিদায় নেবে জার্মানরা

আপডেট : ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:৫৫ পিএম

বিশ্বকাপ ফুটবলে জার্মানির অর্জন আর রেকর্ডের পাল্লা কম ভারি না। টুর্নামেন্ট সর্বোচ্চ আটবার ফাইনাল খেলে চারবারই শিরোপা জিতেছে তারা। প্রথম দল হিসেবে টানা তিন আসরে ফাইনাল খেলার কীর্তিও গড়েছিল ইউরোপীয় পরাশক্তিরা। তাছাড়া, বিশ্বকাপ ইতিহাসে সর্বোচ্চ ম্যাচ এবং সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ডেও ব্রাজিলের পরেই অবস্থান জার্মানদের।

তবে টুর্নামেন্টের ৮০ বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো ২০১৮ সালে রাশিয়ায় অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে গ্রুপপর্ব থেকেই বিদায় নেয় জার্মানি। চার বছর ঘুরে আরেকটি বিশ্বকাপেও প্রায়ই একই পরিস্থিতির মুখোমুখি চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে কোস্টারিকার বিরুদ্ধে জিততে না পারলে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো টানা দুবার নকআউট পর্বে যেতে ব্যর্থ হবে ইউরোপীয় পরাশক্তিরা।

বিশ্বকাপে দলীয় ব্যর্থতার জন্য কোচের চাকরি যাওয়া কিংবা নিজ থেকেই সরে যাওয়া কোনো অভূতপূর্ব ঘটনা নয়। ১৯৯০ সালের পর মেক্সিকো প্রথমবারের মতো গ্রুপপর্বের বৈতরণী পেরোতে ব্যর্থ হওয়ার পর দলের কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন টাটা মার্টিনো। তবে জার্মানি গ্রুপপর্ব থেকে বিদায় নিলেও দায়িত্ব ছাড়ার ইচ্ছে নেই জার্মানি কোচ হ্যান্সি ফ্লিকের। এমনকি নিজের ভবিষ্যৎ নিয়েও কোনো দুশ্চিন্তা নেই তার।

যার অধীনে জার্মানি গত বিশ্বকাপে গ্রুপপর্ব পেরোতে ব্যর্থ হয়েছিল, সেই জোয়াকিম লোয়ের রেখে যাওয়া জুতোয় পা গলিয়েই ২০২১ সালে জার্মানির কোচের দায়িত্ব নেন হ্যান্সি ফ্লিক। জার্মানিতে অনুষ্ঠিতব্য ২০২৪ ইউরো পর্যন্তই ফ্লিকের সঙ্গে চুক্তি রয়েছে জার্মানির ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (ডিএফবি)।

এক সংবাদ সম্মেলনে হ্যান্সি ফ্লিক বলেন,নিজের পক্ষে থেকে আমি বলছি যে ২০২৪ সাল পর্যন্ত আমার চুক্তি আছে এবং আমি ইউরো চ্যাম্পিয়নশপের দিকে তাকিয়ে আছি। তবে এটা এখনও অনেক পরের কথা।”

এগিয়ে গিয়েও প্রথম ম্যাচে জাপানের কাছে ১-২ গোলে হেরে গিয়ে কাতার বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করে জার্মানি। স্পেনের সঙ্গে পরবর্তী ম্যাচটিতে ১-১ গোলের ড্রয়ের ফলে দুই ম্যাচ থেকে জার্মানদের সংগ্রহ মাত্র এক পয়েন্ট। বর্তমানে ডি গ্রুপের তলানিতে থাকলেও এখনও শেষ ষোলোতে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে তাদের। মূলত কোস্টারিকার কাছে জাপানের ০-১ গোলের পরাজয়টিই জার্মানিকে এখনও নকআউট পর্বের দৌড়ে রেখেছে।

শেষ ষোলোর টিকিট পাওয়ার জন্য জার্মানিকে গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে কোস্টারিকাকে অবশ্যই হারাতে হবে। তবে কোস্টারিকার বিরুদ্ধে জয় তুলে নেওয়ার পাশাপাশি হ্যান্সি ফ্লিকের শিষ্যদের থাকতে হবে স্পেনের কাছে জাপানের হারের কিংবা ম্যাচটি ড্র হওয়ার প্রত্যাশায়ও। কারণ নকআউট পর্বে যেতে তখন জার্মানিকে এগিয়ে থাকতে হবে গোল ব্যবধানে। অন্যথায় যেকোনো ফলে টানা দ্বিতীয়বারের মতো প্রথম রাউন্ডে বিদায় নিতে হবে জার্মানদের।

কোস্টারিকার বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে জার্মান কোচ বলেন, “গ্রুপের অন্য ম্যাচে চাপ সৃষ্টির জন্য আমরা যত দ্রুত সম্ভব খেলাটি শেষ করে দিতে চাই। কোস্টারিকা সম্ভবত রক্ষণাত্মক কৌশলে খেলবে। স্পেনের বিরুদ্ধে ম্যাচে আমাদের যে মনোভাব ছিল, কোস্টারিকার বিরুদ্ধেও সেই একই মানসিকতা নিয়ে খেলতে হবে।”

“ই ”গ্রুপের অন্য ম্যাচে জাপানের কাছে স্পেন হেরে গেলে শেষ ষোলোর টিকিট পাওয়ার জন্য কোস্টারিকার বিরুদ্ধে কমপক্ষে ৮ গোলের ব্যবধানে জয় তুলে নিতে হবে জার্মানিকে। তবে সেটি নিয়ে হ্যান্সি ফ্লিকের কোনো মাথাব্যথা নেই।

জার্মানি কোচ বলেন, “কোস্টারিকার বিরুদ্ধে ৮ গোলের ব্যবধানে জেতার কথা বললে তাদের খাটো করে দেখা হবে। ম্যাচের শুরু থেকেই জয় তুলে নেওয়াই আমাদের লক্ষ্য থাকবে এবং সেটি করতে পারলে আমরা আনন্দিত হবো। কিন্তু স্পেনের কাছে ৭-০ গোলে বিধ্বস্ত হওয়ার পর জাপানের বিরুদ্ধে এমন দুর্দান্তভাবে ফিরে আসায় কোস্টারিকা সম্মানের দাবিদার।”

About

Popular Links