Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

তিনি চাইলে এই বিশ্বকাপ হতে পারে মেসিময়, শুধুই মেসিময়

পরম আকাঙ্ক্ষিত সোনালি ট্রফির মতো বিশ্বকাপের অন্তত আরও চারটি রেকর্ড হাতছানি দিয়ে ডাকছে আর্জেন্টিনা অধিনায়ককে

আপডেট : ১২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:১৪ পিএম

লিওনেল মেসি এবং রেকর্ড যেন একে অপরের সহচর। দীর্ঘ দেড় যুগের পেশাদার ক্যরিয়ারে ফুটবল ইতিহাসের রেকর্ডপাতায় অনেকবারই নিজের নাম তুলেছেন এই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। কখনও বা অন্য কারও রেকর্ড নিজের দখলে নিয়ে আবার কখনও বা নিজেই রেকর্ডের জন্ম দিয়ে। কাতার বিশ্বকাপের ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না।

গ্রুপপর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই সৌদি আরবের বিরুদ্ধে পেনাল্টি থেকে লক্ষ্যভেদ করে প্রথম আর্জেন্টাইন হিসেবে ফিফা বিশ্বকাপের চারটি ভিন্ন আসরে গোলের দেখা পেয়েছেন ৩৫ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড। কাতার বিশ্বকাপের আগে ২০০৬, ২০১৪ এবং ২০১৮ বিশ্বকাপেও গোল করেছিলেন ফুটবলের ক্ষুদে জাদুকর।

গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে পোল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচও লিওনেল মেসির জন্য রেকর্ডের উপলক্ষ হয়ে এসেছিল। প্রায় তিন দশক ধরে বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার হয়ে সর্বোচ্চ ২১টি ম্যাচ খেলার রেকর্ডটি ছিল প্রয়াত কিংবদন্তি ডিয়েগো ম্যারাডোনার দখলে। পোলিশদের বিরুদ্ধে মাঠে নামার মাধ্যমে রেকর্ডটি নিজের করে নেন মেসি।

তবে কাতার বিশ্বকাপে লিওনেল মেসির রেকর্ডগাঁথা এখানেই হয়ত শেষ হয়ে যাবে না। পরম আকাঙ্ক্ষিত সোনালি ট্রফির মতো বিশ্বকাপের অন্তত আরও চারটি রেকর্ড হাতছানি দিয়ে ডাকছে আর্জেন্টিনা অধিনায়ককে। বিশ্বকাপ শিরোপা জেতার সঙ্গে সঙ্গে এই রেকর্ডগুলোও নিজের দখলে নিয়ে নিলে ফুটবল ইতিহাসে মেসির অমরত্ব পাওয়া নিয়ে আর কোনো সন্দেহের অবকাশও থাকবে না।

ব্রাজিলে অনুষ্ঠেয় ২০১৪ বিশ্বকাপে সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার হিসেবে গোল্ডেন বল জিতে নিয়েছিলেন মেসি। কাতার বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা অধিনায়ক যেমন ছন্দে রয়েছেন, তাতে আবারও তার হাতে গোল্ডেন বল ওঠা খুব অস্বাভাবিক কিছু হবে না। যদি সত্যিই তাই হয়, তাহলে বিশ্বকাপ ইতিহাসের প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে দুবার গোল্ডেন বল জেতা খেলোয়াড় হবেন মেসি।

কোয়ার্টার ফাইনালে নেদারল্যান্ডসের বিরুদ্ধে পেনাল্টি থেকে লক্ষ্যভেদের মাধ্যমে বিশ্বকাপে ১০টি গোল হয়ে গেছে মেসির। এর মাধ্যমে বিশ্বকাপে আর্জেন্টাইনদের পক্ষে সর্বোচ্চ গোলদাতা হিসেবে গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতার পাশে বসেছেন তিনি। আর একটি গোল করতে পারলেই আর্জেন্টাইন খেলোয়াড়দের মধ্যে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ গোলদাতার রেকর্ড গড়বেন ৩৫ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড।

মিনিটের হিসেবে ফিফা বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি সময়ে মাঠে থাকার রেকর্ড ইতালির পাওলো মালদিনির। ক্যারিয়ারে চারটি বিশ্বকাপ খেলা ইতালিয়ান ডিফেন্ডার মাঠে ছিলেন ২,২১৯ মিনিট। এখন পর্যন্ত পাঁচটি বিশ্বকাপে লিওনেল মেসি মাঠ ছিলেন ১,৯৮৫ মিনিট। আগামী দুটি ম্যাচে পুরো সময় মাঠে থাকলে রেকর্ডটি হয়ে যাবে শুধুই মেসির।

শুধু মিনিটের হিসাবে সর্বোচ্চ সময় মাঠে থাকাই না, লিওনেল মেসির সামনে রয়েছে বিশ্বকাপ ইতিহাসের সর্বোচ্চ সংখ্যক ম্যাচ খেলার রেকর্ড গড়ার সুযোগও। ক্যারিয়ারে পাঁচটি বিশ্বকাপ খেলে ২৫ ম্যাচে মাঠে নামার মাধ্যমে রেকর্ডটি আপাতত সাবেক জার্মান মিডফিল্ডার লোথার ম্যাথাউসের দখলে। বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ২৪ ম্যাচ খেলা মেসি আর দুটি ম্যাচে মাঠে নামলেই রেকর্ডটি নিজের করে নেবেন।

About

Popular Links