Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বহুবার রিয়াল মাদ্রিদে ফিরতে চেয়েছিলেন রোনালদো!

আল নাসরে যোগ দেওয়ার আগের ৪০ দিন পর্যন্তও রিয়াল মাদ্রিদের কাছ থেকে সাড়া পাওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন রোনালদো

আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০২৩, ০৫:০৭ পিএম

দেড় মাস ক্লাবহীন থাকার পর সৌদি ক্লাব আল নাসরে যোগ দিয়েছেন পর্তুগিজ ফুটবল তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। গত সপ্তাহে সিআর সেভেনকে সৌদি ক্লাবের খেলোয়াড় হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো অবশ্য গত বছরের গ্রীষ্মকালীন দলবদলের সময় থেকেই নতুন ক্লাব খুঁজতে উঠে পড়ে লেগেছিলেন। স্প্যানিশ সাংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছে, ফ্রি এজেন্ট থাকার সময়ে রোনালদোর পরবর্তী গন্তব্য হিসেবে তালিকায় ছিল সাবেক ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদও। পর্তুগিজ ফরোয়ার্ডের জন্য তার এজেন্ট জর্জ মেন্ডেসও বেশ কয়েকবার রিয়াল মাদ্রিদের দুয়ারে কড়া নেড়েছিলেন। কিন্তু সিআর সেভেনকে দলে ভেড়াতে রাজি হয়নি স্প্যানিশ ক্লাবটি।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য অ্যাথলেটিকের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, গ্রীষ্মকালীন দলবদলের সময় থেকেই রোনালদোর বিষয়ে আলোচনার জন্য একাধিকবার রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন জর্জ মেন্ডেস। রোনালদোর সর্বশেষ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড বেতনের একটি বড় অংশ বহন করতে প্রস্তুত ছিল। কিন্তু আগামী মাসেই উনচল্লিশে পা দিতে যাওয়া পর্তুগিজকে দলে টানতে অনিচ্ছুক ছিল লস ব্লাঙ্কোস শিবির।

কাতার বিশ্বকাপ থেকে পর্তুগালের বিদায়ের পর নিজেকে ফিট এবং প্রস্তুত করতে সাবেক ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদে অনুশীলন করতে চাওয়ার অনুমতি চেয়েছিলেন রোনালদো। শেষ পর্যন্ত ক্লাবের কাছ থেকে অনুমতি পান পাঁচবারের ব্যালন ডি অরজয়ী ফুটবলার। নিজের ক্যারিয়ারের মধ্যগগনের দিনগুলো পার করা ক্লাবে এই পর্তুগিজ স্ট্রাইকারকে একাকি অনুশীলন করেন।

তবে তখন সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে রোনালদোর প্রত্যাবর্তন নিয়ে গুঞ্জন উঠেছিল। যদিও শেষ পর্যন্ত তা বাস্তবে রূপ নেয়নি। গত বছরের শেষদিকে স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে বসেই সৌদি আরবের ক্লাব আল নাসরে নাম লেখান সিআর সেভেন। কিন্তু স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম মার্কার ভাষ্যমতে, আল নাসরে যোগ দেওয়ার আগের ৪০ দিন পর্যন্তও রিয়াল মাদ্রিদের কাছ থেকে সাড়া পাওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন রোনালদো।

গত নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে ব্রডকাস্টার পিয়েরে মরগ্যানকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ আনেন। সেই সঙ্গে রেড ডেভিলদের সাবেক অন্তর্বর্তী কোচ রাল্ফ র‍্যাগনিক এবং বর্তমান কোচ এরিক টেন হ্যাগেরও সমালোচনা করেন সিআর সেভেন। সেই সাক্ষাৎকার প্রকাশের পর ম্যান ইউনাইটেডের সঙ্গে রোনালদোর সম্পর্কের শীতলতা প্রকট আকার ধারণ করে। শেষ পর্যন্ত ৩৭ বছর বয়সী ফরোয়ার্ডের সঙ্গে চুক্তি ছিন্ন করে ইংলিশ ক্লাবটি। এরপর আড়াই বছরের চুক্তিতে ২০২৫ সাল পর্যন্ত সৌদি আরবের ক্লাব আল নাসরে যোগ দেন সিআর সেভেন।

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে দলে টানার বিষয়টিতে ফুটবলীয় দিক যতটা না, তার চেয়ে বেশি ভূমিকা রেখেছে ব্যবসায়িক কারণ। আর হবে নাই বা কেন? ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো নামটা নিজেই একটা ব্র্যান্ড। ৩৯ বছর বয়সের দোরগোড়ায় দাঁড়ানো রোনালদোর জন্যও তাই টাকা ঢালতে কার্পণ্য করেনি সৌদি ক্লাবটি।

তবে কী পরিমাণ অর্থের বিনিময়ে এই দলবদল হয়েছে, সেটি আল নাসর বা রোনালদোর পক্ষ থেকে এখনও নিশ্চিত করা হয়নি।

সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন টিভি চ্যানেল আল এখবারিয়া নিউজের তথ্যমতে, আল নাসরে খেলার মাধ্যমে রোনালদোর বার্ষিক আয় দাঁড়াবে ১৭২ মিলিয়ন ব্রিটিশ পাউন্ড (বাংলাদেশি মুদ্রায় ২,১৫৯ কোটি টাকা)।

তবে এই টাকা শুধুমাত্র মাঠে খেলার জন্য পাবেন না রোনালদো। সিবিএস স্পোর্টসের তথ্যমতে, আল-নাসের তাকে বছরে বেতন দিবে ৬২ মিলিয়ন পাউন্ড, বাকি টাকা রোনালদো পাবেন তার ইমেজ স্বত্ব, বিজ্ঞাপনে অংশগ্রহণসহ আরও আনুষঙ্গিক কাজকর্ম থেকে।

পর্তুগিজ তারকা আল নাসরে যোগদানের পর ক্লাবটির সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের একাউন্টগুলোতে ভক্তদের সংখ্যা অগণিত হারে বাড়ছে। ইন্সটাগ্রামে চারগুণের বেশি ফলোয়ার বেড়েছে সৌদির ক্লাবটির। ইউরোপীয় গণমাধ্যমসহ পুরো বিশ্ব মিডিয়ার নজরে এসেছে আল নাসের। ক্লাবটি এখন এখন ফুটবল আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে।

আল নাসরেও ৭ নম্বর জার্সি পরে খেলবেন রোনালদো। গত দুই দশক ধরে ইউরোপের ক্লাব ফুটবলের সেরা তারকাদের একজন ছিলেন রোনালদো। সব মিলিয়ে ইউরোপের ৪টি ক্লাবে খেলেছেন তিনি। বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে তিনি পাঁচটি উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, তিনটি ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ এবং দুটি করে স্প্যানিশ লা লিগা ও ইতালিয়ান সিরি আ জিতেছেন। ব্যালন ডি অর পুরস্কার জিতেছেন ৫ বার।

About

Popular Links