Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শ্রীলংকার ব্যর্থতার পেছনে ‘ক্যাসিনো-ভণ্ড ধর্মগুরু’!

এশিয়া কাপের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পা রাখলেও বিশ্বকাপে সুপার টুয়েলভ থেকেই বিদায় নিয়েছিল শ্রীলঙ্কা

আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০২৩, ০৯:১৩ পিএম

অস্ট্রেলিয়ায় টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার ব্যর্থতার কারণ অনুসন্ধানে সুপ্রিম কোর্টের সাবেক বিচারপতি কুসালা সরোজিনি বীরাবর্ধনার নেতৃত্বে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছিল শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি)। দুই মাসের তদন্ত শেষে বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) ৬৩ পৃষ্ঠার প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, টুর্নামেন্টে খেলতে গিয়ে ভণ্ড ধর্মগুরুর পাল্লায় পড়েছিলেন লঙ্কান ক্রিকেটাররা। পাশাপাশি ঘটেছে ক্যাসিনোতে গিয়ে ঝামেলায় জড়ানো এবং কোনো দায়িত্বে না থাকা ব্যক্তির জন্য খরচের মতো অনিয়মের ঘটনাও।

এশিয়া কাপের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পা রাখলেও সুপার টুয়েলভ থেকেই বিদায় নিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। অস্ট্রেলিয়া থেকে দেশে ফেরার দিন সিডনিতে এক নারীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে স্থানীয় পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন লঙ্কান ব্যাটার দানুশকা গুনাথিলাকা।

ক্যাসিনোকাণ্ডে জড়িত থাকায় প্রতিবেদনে নাম এসেছে চামিকা করুণারত্নেরও। ছয় সতীর্থের সঙ্গে ক্যাসিনোয় গিয়ে এক জুয়াড়ির সঙ্গে ছবি তোলা নিয়ে আপত্তি তুলে ঝামেলা সৃষ্টি করেন লঙ্কান বোলার। ওই ঘটনায় চামিকাকে জরিমানা করার পাশাপাশি নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়। 

ক্যাসিনোয় ক্রিকেটারদের যাওয়া প্রসঙ্গে টিম ম্যানেজার মাহিন্দা হালানগোদা জানান, অস্ট্রেলিয়ার রেস্টুরেন্ট ৮টা থেকে সাড়ে ৮টার মধ্যে বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ক্রিকেটাররা নৈশভোজের জন্য ক্যাসিনোতে গিয়েছিলেন। যদিও তদন্ত কমিটি এই বক্তব্যের সঙ্গে একমত হয়নি।

ক্রিকেটারদের পাশাপাশি কর্মকর্তাদের অনিয়মও খুঁজে পেয়েছে তদন্ত কমিটি। সাবেক হাই পারফরম্যান্স ম্যানেজার জেরম জয়ারত্নে ১০ দিন মেলবোর্নে ছিলেন। এ সময় তার পেছনে ৭ হাজার ডলার ব্যয় হয়েছে। যদিও তিনি কোনো দায়িত্বে ছিলেন না। বরং নিজের বোনের সঙ্গেই অধিকাংশ সময় কাটিয়েছেন। আবার কনসালট্যান্ট কোচ হিসেবে যাওয়া মাহেলা জয়াবর্ধনে অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে একটি রেস্টুরেন্টের শাখা খোলায় হাজির হয়েছিলেন।

তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্বকাপের স্কোয়াডে থাকা কয়েকজন ক্রিকেটার ও কর্মকর্তা একজন ভণ্ড ধর্মগুরু দ্বারা প্রভাবিত ছিলেন। উদাহরণ হিসেবে বোলার চামিকা করুনারত্নের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। হোটেল কর্তৃপক্ষ অগ্নি দুর্ঘটনা নিয়ে সতর্কবার্তা দিলেও নিজের কক্ষে তেলের বাতি জ্বালিয়ে রাখতেন করুনারত্নে। এ বিষয়ে অধিকতর তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে কমিটি।

শ্রীলঙ্কার ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের কাছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ডের বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ অডিট করার সুপারিশ করেছে তদন্ত কমিটি। প্রয়োজনীয় নথিপত্র ধ্বংস করার আগে সেগুলো জব্দ করারও আহ্বান জানিয়েছে তারা।

শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য করা হয়নি। তবে তদন্ত প্রতিবেদনের বিস্তারিত দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শ্রীলঙ্কার ক্রীড়ামন্ত্রী রোশান রানাসিংহে।

About

Popular Links