Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রংপুরের বিদায়ঘণ্টা বাজিয়ে বিপিএলের ফাইনালে সিলেট

বিপিএল ইতিহাসের সফলতম অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার নেতৃত্বে প্রথমবারের ফাইনালে উঠেছে সিলেট

আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১১:৩৮ পিএম

বিপিএলে এর আগে কখনোই ফাইনালে খেলেনি সিলেট স্ট্রাইকার্স। তবে বিপিএল ইতিহাসের সফলতম অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার ছোঁয়ায় আসরের শুরু থেকেই অন্য চেহারায় দেখা গিয়েছিল তাদের। সেই ধারাবাহিকতায় তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ দ্বিতীয় এলিমিনেটরে রংপুর রাইডার্সকে ১৯ রানে হারিয়ে প্রথমবারের মতো বিপিএলের ফাইনালে নাম লিখিয়েছে সিলেট স্ট্রাইকার্স। বৃহস্পতিবারের ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ বর্তমান চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

মঙ্গলবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমেছিল সিলেট স্ট্রাইকার্স। ওপেনিং জুটিতে নাজমুল শান্ত ও তৌহিদ হৃদয় ৮.৫ ওভারে ৬৫ রান তুলে ফেললে সিলেটের শুরুটা দারুণ হয়। ৩০ বলে পাঁচটি চার ও এক ছক্কায় ৪০ রান করার পর শান্ত সাজঘরে ফিরলে এ জুটি ভাঙে। পরের ওভারে বিদায় নেন ২৫ রান করা হৃদয়ও।

সাধারণত লোয়ার মিডল অর্ডারে নামলেও এদিন ব্যাট হাতে তিনে নেমেছিলেন মাশরাফি। টপ অর্ডারে উঠে এসে শুরু থেকেই আগ্রাসীভাবে ব্যাটিং করতে থাকেন সিলেট অধিনায়ক। ১৬ বলে তিন চার ও এক ছক্কায় ২৮ রান করার ডোয়াইন ব্রাভোর শিকার হন তিনি। পরবর্তীতে জাকির হাসানের ১৩ বলে ১৬, রায়ান বায়ার্লের ৬ বলে ১৫, থিসারা পেরেরার ১৫ বলে ২১ এবং জর্জ লিন্ডের ১০ বলে অপরাজিত ২১ রানের ছোট কার্যকরী ইনিংসরন ওপর ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৮২ রান সংগ্রহ করে সিলেট স্ট্রাইকার্স। রংপুর রাইডার্সের বোলারদের মধ্যে সফলতম হাসান মাহমুদ এবং দাসুন শানাকা ২টি করে উইকেট নেন।

জয়ের জন্য ১৮৩ রানের লক্ষ্যে নেমে রংপুরের শুরুটা ভালো হয়নি। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে দলীয় তিন রানে ফিরে যান স্যাম বিলিংস। তবে দ্বিতীয় উইকেটে ৩১ রানের জুটি গড়ে ওপেনার রনি তালুকদার এবং শামীম হোসেন পাটোয়ারি মিলে বিপর্যয় সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন। ১১ বলে ১৪ রান করে আউট হয়ে গেলেও উইকেটে এসেই ঝড় তুলেন নিকলাস পুরান। কিন্তু দলীয় ৬৮ রানে ফিরে যান ১৪ বলে ৩০ রান করা ক্যারিবীয়।

এরপর রনিকে নিয়ে অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান ম্যাচটা প্রায় নিজেদের দিকে হেলিয়ে দিয়েছিলেন। চতুর্থ উইকেটে দুজনের ৮২ রানের জুটিতে জয়ের স্বপ্ন দেখছিল রংপুর রাইডার্স। জয়ের জন্য শেষ তিন ওভারে ৩৩ রান দরকার ছিল তাদের। কিন্তু ১৮তম ওভারে দলীয় ১৫০ রানে ২৪ বলে ৩৩ রান করা সোহান সাজঘরে ফিরলে আবারও আশা দেখদে পায় সিলেট।

তবে তিন বল পরই ৫২ বলে ৬৬ রান করা রনি তালুকদার দুর্ভাগ্যজনকভাবে রান আউট হলে ম্যাচের পেন্ডুলামটা একরকম রংপুরের দিকে হেলে পড়ে। পরে ব্যাট করতে নামা মেহেদি হাসান, ডোয়াইন ব্রাভো কিংবা দাসুন শানাকা কেউই মাথা তুলে দাঁড়াতে না পারায় শেষ দুই ওভারে মাত্র ১১ রান নিয়ে তিন উইকেট হারায় রংপুর। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৬৩ রানে আটকে যায় তারা। ৩ উইকেট নিয়ে লুক উড সিলেটের সফলতম বোলার হলেও ৪ ওভারে মাত্র ১৯ রান দিয়ে ২ উইকেট তুলে নিয়ে জয়ের নায়ক তানজিম হাসান সাকিব।

About

Popular Links