Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

হারের পর রেফারির রুমে গিয়ে ক্ষোভ ঝাড়লেন বায়ার্ন কোচ

যে ঘটনা নিয়ে নাগেলসম্যানের এত ক্ষোভ, সেটি ঘটেছে ম্যাচের শুরুতেই

আপডেট : ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৬:১৮ পিএম

বরুশিয়া মনশেনগ্লাডবাখ যেন বায়ার্ন মিউনিখের কাছে এক দুর্ভেদ্য গেরোতে পরিণত হয়েছে। ঘরোয়া এবং ইউরোপীয় প্রতিযোগিতায় দাপট থাকলেও বরুশিয়া মনশেনগ্লাডবাখের বিপক্ষে সর্বশেষ পাঁচ ম্যাচে জয়ের দেখা পায়নি বাভারিয়ানরা। 

শনিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) মনশেনগ্লাডবাখের কাছে ৩-২ গোলে হারের স্বাদ পেয়েছে বায়ার্ন।

গত জানুয়ারিতে টানা তিন ম্যাচে ড্রয়ের পর বুন্দেসলিগায় টানা দুই ম্যাচে জয় পেয়েছিল বায়ার্ন মিউনিখ। তবে বরুশিয়া মনশেনগ্লাডবাখের কাছে হেরে বাভারিয়ানদের জয়ের ধারায় ছেদ পড়েছে। দলের পরাজয়ের দায় রেফারিদের দিয়েছেন বায়ার্ন মিউনিখ কোচ হুলিয়ান নাগেলসম্যান। তবে শুধু দায় চাপিয়ে ক্ষান্ত হননি, ম্যাচের পর ক্ষিপ্ত হয়ে রেফারিদের কক্ষেই হানা দিয়েছিলেন বায়ার্ন কোচ।

যদিও হারের কারণে নয় বায়ার্ন কোচ মেজাজ হারিয়েছেন অন্য কারণে। মূলত ম্যাচে নিজ দলের এক ডিফেন্ডারকে লাল কার্ড দেখানোর সিদ্ধান্তে অসন্তুষ্ট হয়েই রেফারিদের কক্ষে গিয়ে কটাক্ষ করে এসেছেন নাগেলসম্যান। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম গোল ডট কমের এক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়।

যে ঘটনা নিয়ে নাগেলসম্যানের এত ক্ষোভ, সেটি ঘটেছে ম্যাচের শুরুতেই। ম্যাচের বয়স যখন ৮ মিনিট, তখন বায়ার্নের গোলমুখ এগিয়ে যাওয়া বরুশিয়া মনশেনগ্লাডবাখের অ্যালাজানে প্লেকে পেছন থেকে বাধা দেন বায়ার্ন সেন্টারব্যাক ডায়োট উপামেকানো। সঙ্গে সঙ্গেই ফরাসি ডিফেন্ডারকে লাল কার্ড দেখান রেফারি টোবিয়াস ওয়েলজ।

শুরুতেই দশজনের দলে পরিণত হওয়া বাভারিয়ানরা ম্যাচের পুরোটা সময়েই ব্যাকফুটে ছিল। ডায়োট উপামেকানোকে দেখানো লাল কার্ড নিয়ে বায়ার্ন মিউনিখ কোচ হুলিয়ান নাগেলসম্যানের প্রতিক্রিয়া ছিল, “এটি হাস্যকর সিদ্ধান্ত। সে কি আমাদের সঙ্গে মজা করল?”

নিজের মন্তব্যের ব্যাখ্যা দিয়ে নাগেলসম্যান বলেন, “ডায়োট খুব হালকাভাবে প্লিকে স্পর্শ করেছিল। সে ওকে ধরে রাখেনি কিংবা ওর ভারসাম্যও নষ্ট করেনি। প্লির কাঁধ জায়গা থেকে একটুও নড়েনি। এখানে ওর (উপামেকানো) কোনো ভুলই ছিল না। মানছি, রেফারিও মানুষ। ভুল হতে পারে, সমস্যা নেই। কিন্তু ওটা কোনোভাবেই লাল কার্ড ছিল না।”

তবে ম্যাচের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় রেফারির কক্ষে এভাবে হানা দেওয়ার ব্যাপারটিও যে ঠিক হয়নি, সেটিও বুঝতে পেরেছেন নাগেলসম্যান। বায়ার্ন কোচের ভাষ্যমতে, “আবেগ খেলার একটা অংশ। যাই হোক, আমি অবশ্যই তার বিরুদ্ধে করা আমার মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চাচ্ছি। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমি অতিরিক্ত করে ফেলেছি।”

বরুশিয়া মনশেনগ্লাডবাখের কাছে হারের পরেও বুন্দেসলিগার শীর্ষস্থানে থাকা নিয়েই শঙ্কায় রয়েছে বায়ার্ন। ২১ ম্যাচ থেকে ৪৩ পয়েন্ট অর্জন করে অবশ্য বাভারিয়ানরা এখনও পয়েন্ট তালিকায় সবার ওপরে। এদিকে, এক ম্যাচ কম খেলা ইউনিয়ন বার্লিন কেবল এক পয়েন্টে পিছিয়ে। রবিবার শালকের বিপক্ষে বার্লিন জয় পেলেই দ্বিতীয় অবস্থানে নেমে যাবে নাগেলসম্যানের দল।

About

Popular Links