Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

এলচেকে বিধ্বস্ত করে শিরোপার আরও কাছে বার্সা

এ জয়ের মাধ্যমে ১৫ পয়েন্ট ব্যবধানে এগিয়ে লা লিগার শীর্ষস্থান আরও সুসংহত করলো কাতালান ক্লাবটি

আপডেট : ০২ এপ্রিল ২০২৩, ১২:০৫ পিএম

আন্তর্জাতিক বিরতির আগে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদকে ঘরের মাঠে ২-১ গোলে হারিয়ে লা লিগার শীর্ষস্থান পাকাপোক্ত করেছিল বার্সেলোনা। আন্তর্জাতিক বিরতির আগে যেখানে শুরু করেছিল, পুনরায় মাঠে নামার পর কাতালানরা যেন সেখান থেকেই শুরু করলো। শনিবার (১ এপ্রিল) এলচে ৪-০ গোলে হারিয়ে চার বছর পর লা লিগা জয়ের দিকে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল বার্সা।

প্রতিপক্ষের মাঠে এদিন শুরু থেকেই চালকের আসনে ছিল বার্সেলোনা। বল দখলের লড়াই থেকে আক্রমণ- সব জায়গায়ই শ্রেয়তর দল ছিল কাতালান ক্লাবটি। যদিও প্রতিপক্ষের আঁটসাঁট রক্ষণ ভাঙতে কিছুটা বেগ পেতে হচ্ছিল জাভি হার্নান্দেজের শিষ্যদের।

২০ মিনিটে প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগের প্রতিরোধ ভেঙে দেয় বার্সেলোনা। মার্কোস আলোনসোর ফ্রি-কিকে মাথা ছুঁইয়ে রবার্ট লেভানডফস্কির দিকে বল বাড়ান রোনাল্ড আরুহো। প্রথমে বাঁ পা দিয়ে চেষ্টা করলেও শেষে ডান পা দিয়ে বল জালে জড়ান পোলিশ ফরোয়ার্ড।

পিছিয়ে পড়ার পরও ম্যাচে ফেরার চেষ্টায় বার্সেলোনা রক্ষণকে ব্যতিব্যস্ত রাখে এলচে। যদিও বার্সা গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে টার স্টেগানের দৃঢ়তায় তাদের চেষ্টা বিফলেই যায়। উল্টো প্রথমার্ধের শেষদিকে আরও গোল হজম করতে বসেছিল লা লিগার পয়েন্ট তালিকার সর্বশেষ দলটি।

৪৩ মিনিটে ফেরান তোরেসের বাড়ানো ক্রসে লেভানডফস্কির হেড লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। মিনিট দুয়েক পর ব্যবধান দ্বিগুণের সুযোগ হারান জুলেস কুন্ডেও। পাবলো গাভির ক্রসে ফরাসি ডিফেন্ডারের জোরালো শট গোললাইন থেকে ফিরিয়ে দেন ওমার মাসকারেল। এলচের বিপক্ষে ১-০ গোলে এগিয়ে থেকেই মধ্যবিরতিতে যায় কাতালানরা।

৫০ মিনিটে বিপজ্জনক জায়গায় বল পেয়েও নিজে গোলের চেষ্টা না করে আনসু ফাতিকে লক্ষ্য করে কাটব্যাক করেছিলেন লেভানডফস্কি। কিন্তু মাসকারেল দেয়াল হয়ে দাঁড়ানোয় ফাতি পর্যন্ত বল পৌঁছেনি। পরের মিনিটে তোরেসের ভাসানো ক্রসে বুক দিয়ে বল নামিয়ে বাঁ পায়ে শট নিয়েছিলেন আলোনসো। তবে এলচে গোলরক্ষক বাদিয়া সেই শটে পা ছুঁইয়ে কর্নারের বিনিময়ে দলকে রক্ষা করেন।

৫৬ মিনিটে বার্সেলোনাকে আর হতাশ হতে হয়নি। প্রতি আক্রমণে তোরেসের কাছ থেকে নিজেদের অর্ধে বল পেয়ে অনেকটা এগিয়ে যান ফাতি। প্রতিপক্ষের কাছ থেকে বাধার সম্মুখীন না হওয়ায় ডি-বক্সের বাইরে থেকে কোনাকুনি শটে এলচের জালে বল পাঠান তরুণ স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড। গত অক্টোবরের পর প্রথমবারের মতো লা লিগায় গোলের দেখা পেলেন ফাতি।

৬৬ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোলের মাধ্যমে ব্যবধান বাড়ান লেভানডফস্কি। মাঝমাঠে প্রতিপক্ষের পা থেকে বল ছিনিয়ে পোলিশ স্ট্রাইকারের দিকে বাড়ান গাভি। ডি-বক্সে ঢুকে নিখুঁত ফিনিশিংয়ে বল জালে জড়াতে ভুল করেননি বার্সেলোনার নাম্বার নাইন।

মিনিট চারেক পর আবারও গোলের দেখা পায় বার্সেলোনা। জোড়া গোল করা লেভানডফস্কি এবার হাজির কারিগরের ভূমিকায়। নিজেদের অর্ধ থেকে তোরেসের উদ্দেশে বল বাড়িয়েছিলেন ৩৪ বছর বয়সী এ স্ট্রাইকার। প্রতিপক্ষ ডি-বক্সের মাথা থেকে নেওয়া শটে বার্সাকে চতুর্থ গোল এনে দেন এ স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড।

৮৩ মিনিটে আবারও এলচের জালে বল পাঠিয়ে হ্যাটট্রিক পেয়ে যাচ্ছিলেন লেভানডফস্কি। কিন্তু আক্রমণের শুরুতে তিনিই ফাউল করায় সেই গোল বাতিল হয়ে যায়। বাকি সময় এলচে বেশ কয়েকবার গোলের সুযোগ সৃষ্টি করলেও কখনও পোস্টের বাধা আবার কখনও স্টেগানের বিশ্বস্ত হাতের কারণে তা কাজে আসেনি। ফলে এ মৌসুমে লা লিগার ২০ বার গোল হজম না করে মাঠ ছাড়তে সক্ষম হয় কাতালান বাহিনী।

এলচের বিপক্ষে জয়ের মাধ্যমে ১৫ পয়েন্ট ব্যবধানে এগিয়ে লা লিগার শীর্ষস্থান আরও সুসংহত করলো বার্সেলোনা। ২৭ ম্যাচে ২৩ জয় ও দুই ড্রয়ে ৭১ পয়েন্ট নিয়ে তালিকায় সবার ওপরেই আছে কাতালানরা। এক ম্যাচ কম খেলে ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে রিয়াল মাদ্রিদ রয়েছে পয়েন্ট তালিকার দুইয়ে।

About

Popular Links