Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ঘরের মাঠে পিএসজির টানা দ্বিতীয় হার

ঘরের মাঠে প্যারিসিয়ানদের টানা দুই হারে ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানের শিরোপা লড়াইও জমে উঠেছে

আপডেট : ০৩ এপ্রিল ২০২৩, ১২:৩৫ পিএম

আন্তর্জাতিক বিরতির আগে ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে ঘরের মাঠে রেঁনের কাছে ০-২ গোলে হেরেছিল প্যারিস সেইন্ট জার্মেইন। আন্তর্জাতিক বিরতি থেকে ফিরেও ঘরের মাঠে হারের বৃত্ত থেকে বেরোতে পারল না প্যারিসিয়ানরা। রবিবার (২ এপ্রিল) পার্ক দেস প্রিন্সেসে অলিম্পিক লিঁওর কাছে ০-১ গোলে পরাজিত হয়েছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

প্রথমার্ধে দুদল সমানতালে খেললেও ম্যাচে প্রথম গোলের সুযোগটা পেয়েছিল পিএসজি। ৪ মিনিটে কিলিয়ান এমবাপ্পের উঁচু করে বাড়ানো বল প্রতিপক্ষ ডি-বক্সে পেয়েছিলেন ভিতিনহা। কিন্তু ফাঁকায় বল পেয়েও লক্ষ্যে রাখতে ব্যর্থ হন তিনি।

মিনিট পাঁচেক পর গোলের সুযোগ নষ্ট করেন এমবাপ্পেও। লিওনেল মেসির সঙ্গে বল আদান-প্রদান করে গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে চিপ শট নিয়েছিলেন ফরাসি উইঙ্গার। কিন্তু তার শট পোস্টের বাইরে দিয়ে চলে যায়।

১৫ মিনিটে গোলের সুযোগ পেয়েছিল অলিম্পিক লিঁও। পাল্টা আক্রমণে পিএসজির ডি-বক্সে ফাঁকায় বল পেয়েছিলেন থিয়াগো মেন্ডেস। কিন্তু লিঁওর মিডফিল্ডারের নেওয়া শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। মিনিট তিনেক পর সুবর্ণ সুযোগ হাতছাড়া করেন লিঁওর স্ট্রাইকার আলেক্সান্দ্রে লাকাজেত্তে।

৩৬ মিনিটে পেনাল্টি পেয়েছিল অলিম্পিক লিঁও। অফসাইডের ফাঁদ ভেঙে ব্র্যাডলি বার্কোলা পিএসজির ডি-বক্সে ঢুকে পড়লেও শট নেওয়ার আগে পিছলে ভারসাম্য হারিয়ে পড়ে যান। পরবর্তী লাকাজেত্তে শটে নিতে ছুটে এলেও পিএসজি গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি ডোনারুম্মা তাকে ফাউল করায় রেফারি পেনাল্টির বাঁশি বাজান।

তবে স্পটকিক থেকে লক্ষ্যভেদ করতে ব্যর্থ হন লাকাজেত্তে। লিঁওর ফরাসি স্ট্রাইকারের নেওয়া পেনাল্টি পোস্টে প্রতিহত হয়ে চলে যায় নিকলাস তালিয়াফিকোর পায়ে। সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন তিনিও, ক্রসবার উঁচিয়ে বল মেরেছেন এ লেফটব্যাক।

প্রথমার্ধের শেষদিকে আবারও গোলের সম্ভাবনা সৃষ্টি করে পিএসজি। ৪৫ মিনিটে ২৫ গজ দূর থেকে রেনাতো সানচেসের নেওয়া শট দারুণ দক্ষতায় ফিরিয়ে দেন লিওঁ গোলরক্ষক আন্তনি লোপেস। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে নিজেদের ডি-বক্সে অলিম্পিক লিঁওর ডিফেন্ডার দেয়ান লোভরেনের হাতে বল লাগলেও পিএসজির পক্ষে রেফারি পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেননি।

প্রথমার্ধে দুই দলের সমান দাপট থাকলেও দ্বিতীয়ার্ধে অলিম্পিক লিঁওই ছিল শ্রেয়তর দল। ৫৬ মিনিটে ম্যাচের একমাত্র গোলও পেয়ে যায় তারা। ডান প্রান্ত থেকে এগিয়ে যাওয়া সায়েল কুমবেদির উদ্দেশে ক্রস ফেলেছিলেন থিয়াগো মেন্ডেস। লিঁওর মিডফিন্ডার বল বাড়িয়ে দেন বাঁ দিকে থাকা বার্কোলার দিকে। পিএসজি গোলরক্ষক ডোরারুম্মাকে বিপরীত দিকে ছিটকে ফেলে আড়াআড়ি শটে বল জালে জড়িয়ে দলকে এগিয়ে দেন বার্কোলা।

৬৭ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করার সুযোগ পেলেও দুই দফায় ব্যর্থ হওয়ায় দ্বিতীয় গোলের দেখা পায়নি লিঁও। বাঁ প্রান্ত থেকে ভেতরে ঢুকে পড়া বার্কোলার নেওয়া জোরাল ঝাঁপ দিয়ে ঠেকিয়ে দেন ডেনারুম্মা। কিছুক্ষণ পর কাছ থেকে মুসা ডেম্বেলের নেওয়া শটও ঠেকিয়ে দেন পিএসজি গোলরক্ষক।

সমতায় ফিরতে ম্যাচের বাকি সময়টা প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যায় পিএসজি। কিন্তু আক্রমণে তেমন ধার না থাকায় আর ম্যাচে ফিরতে পারেনি ক্রিস্টোফ গাঁলতিয়েরের শিষ্যরা। শেষ পর্যন্ত মৌসুমে পঞ্চম হার নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় পিএসজিকে। ২০২০ সালের পর সেপ্টেম্বরের পর ঘরের মাঠে টানা দুই হারের তেতো স্বাদ পেল প্যারিসিয়ানরা।

অলিম্পিক লিঁওর কাছে পিএসজির এ হারে ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানের শিরোপা লড়াইও জমে উঠেছে। সপ্তাহ দুয়েক আগেও পয়েন্ট তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা দলের চেয়ে ১২ পয়েন্ট এগিয়ে ছিল পিএসজি। ঘরের মাঠে প্যারিসিয়ানদের টানা দুই হারে সেই ব্যবধান নেমে এসেছে ৬ পয়েন্টে। ২৯ ম্যাচে ৬৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থানে রয়েছে পিএসজিই। সমান সংখ্যক ম্যাচে ৬০ পয়েন্টে নিয়ে পয়েন্ট তালিকার পরের দুই অবস্থানে রয়েছে লেঁস এবং অলিম্পিক মার্শেই।

About

Popular Links