Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সাফজয়ের ছয় মাস পর বিসিবির পুরস্কার পেলো বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল

যোগাযোগের ঘাটতিকেই দেরির কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছেন বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস

আপডেট : ০৬ এপ্রিল ২০২৩, ০৯:৪১ পিএম

গত বছরের সেপ্টেম্বরে কাঠমান্ডুতে স্বাগতিক নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়ে প্রথমবারের মতো নারীদের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিতে নেয় বাংলাদেশ। বাঘিনীদের এ ঐতিহাসিক অর্জনের স্বীকৃতিস্বরূপ তাদের আর্থিক পুরস্কারের ঘোষণা দিয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

তবে ছয় মাস পেরিয়ে গেলেও বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের কাছে বিসিবির সেই আর্থিক পুরস্কার পৌঁছায়নি। অবশেষে বৃহস্পতিবার (৬ এপ্রিল) মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ-আয়ারল্যান্ডের তৃতীয় দিনের খেলা শেষে সাবিনাদের হাতে ৫১ লাখ টাকার চেক তুলে দেওয়া হয়।

অনলাইন সংবাদমাধ্যম বাংলা ট্রিবিউনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গত অক্টোবরেই নারী ফুটবল দলের প্রত্যেকের নামে আলাদা চেক ইস্যু করা ছিল। কিন্তু যথাসময়ে চেক না নেওয়ার কারণে বিসিবিকে নতুন করে চেক ইস্যু করতে হয়েছে। শেষ পর্যন্ত দলের ৩২ সদস্যের আর্থিক পুরস্কারের স্বীকৃতি হিসেবে চেক তুলে দেওয়া হয়।

চেক বুঝে নিতে মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে আসেন নারী দলের কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটন, অধিনায়ক সাবিনা খাতুন, কৃষ্ণা রানী সরকার ও রুপনা চাকমা। দিনের খেলা শেষে বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস, আম্পায়ার্স কমিটির চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ মিঠু এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন বিসিবির বোর্ড রুমে ফুটবলার ও কোচের হাতে চেক তুলে দেন।

ফাইনালে সেরা একাদশের প্রত্যেকে খেলোয়াড়ের জন্য দুই লাখ টাকার চেক ছাড়াও স্কোয়াডের বাকি প্রথম ছয়জনকে দেড় লাখ এবং বাকি ছয়জনকে এক লাখ টাকা করে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া, অফিসিয়াল ও কোচদেরও দেওয়া হয়েছে এক লাখ টাকার চেক। বাড়তি হিসেবে তিন ফুটবলার অধিনায়ক সাবিনা খাতুন, কৃষ্ণা রানী সরকার ও রুপনা চাকমাকে দুই লাখ টাকার চেক দেওয়া হয়েছে।

চেক হস্তান্তরের পর জালাল ইউনুস গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন, “গত অক্টোবরে চেক ইস্যু করা হয়েছিল। ছয় মাস পার হয়ে গেছে। আমরা নতুন করে আবার চেক ইস্যু করে তাদের হাতে তুলে দিলাম।

যোগাযোগের ঘাটতিকেই দেরির কারণ হিসেবে উল্লেখ করে বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান বলেন, তাদের (বাফুফে) সঙ্গে একটা যোগাযোগের ঘাটতি ছিল। আমরা এটা গত বছর দিতে চেয়েছিলাম। তারা ব্যস্ত ছিলেন। আমরাও কয়েকবার যোগাযোগ করেছিলাম। কেউ সময় করতে পারেননি বলে আমরাও চেক তুলে দিতে পারিনি।

দেরিতে হলেও ঈদের আগে নারী ফুটবলারদের হাতে চেক দিতে পারায় উচ্ছ্বসিত বিসিবির এ পরিচালক বলেন, তাদের সম্মানিত কোচ এখানে এসেছেন, খেলোয়াড়রা এসেছেন, সাবিনা এসেছেন, বাকি ফুটবলাররাও আসছেন। তাদের কাছে চেক হস্তান্তর করে আমরা আনন্দিত।

About

Popular Links