Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

শুধু মাঠেই না, শাহরুখের পরিবারের কাছেও নায়কের আসনে রিংকু সিং

ইনিংসের শেষ ওভারে যশ দয়ালের টানা পাঁচ বলে ছক্কা হাঁকিয়ে আইপিএলে গুজরাটের বিপক্ষে কলকাতাকে স্মরণীয় এক জয় এনে দেন রিংকু সিং

আপডেট : ১০ এপ্রিল ২০২৩, ০৪:৪৮ পিএম

মাঠের খেলায় রিংকু সিং যে কাণ্ড ঘটিয়েছেন, সেটি নিয়ে ভবিষ্যতেও জোর আলোচনা চলবে। স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে যা আগে কখনও দেখা যায়নি, এ সব্যসাচী ক্রিকেটার সেটিই করে দেখিয়েছেন ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ১৬তম আসরে। সব্যসাচী বলার কারণ ২৫ বছর বয়সী রিংকু ব্যাটিংয়ে বাঁহাতি এবং বোলিংয়ে ডানহাতি।

রবিবার (৯ এপ্রিল) আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে গুজরাট টাইটান্সের মুখোমুখি হয়েছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। গুজরাটের ছুঁড়ে দেওয়া ২০৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নামা দুবারের চ্যাম্পিয়নদের জয়ের জন্য শেষ পাঁচ বলে ২৮ রান। অর্থাৎ জিততে হলে নিদেনপক্ষে চারটি ছয় এবং একটি চার অবশ্যই লাগবে।

কাগজে-কলমে সম্ভব হলেও বাস্তবিকভাবে এমন ঘটাটা অবিশ্বাস্যই বটে। কিন্তু রিংকু সিং ব্যাপারটাকে কাগজে-কলমে সীমাবদ্ধ রাখতে চাইলেন না। একে একে ইনিংসের শেষ ওভারে যশ দয়ালের টানা পাঁচ বলে ছক্কা হাঁকিয়ে কলকাতাকে স্মরণীয় এক জয় এনে দেন রিংকু। হাতের মুঠো থেকে বেরিয়ে যাওয়া ম্যাচ প্রায় অবিশ্বাস্যভাবেই জিতে নেয় কেকেআর।

ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক ক্রিকেটের বিশ্বের সবচেয়ে বড় টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে অবিস্মরণীয় কীর্তির মাধ্যমে একসময়ে জীবিকার জন্য ঝাড়ুদারের কাজ করা রিংকু যেন গোটা দলের কাছেই নায়ক হয়ে উঠেছেন। শুধু কোচ-সতীর্থরাই না, কেকেআরের মালিক বলিউড বাদশাহ শাহরখ খান এবং তার দুই সন্তান সুহানা খান ও আরিয়ান খানও মেতেছেন রিংকু বন্দনায়।

আরিয়ান খানের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে রিংকু সিংয়ের ব্যাটিং/স্ক্রিনশট

সুযোগ পেলেই আইপিএলে নিজ মালিকানাধীন কলকাতা নাইট রাইডার্সের ম্যাচ দেখতে গ্যালারিতে হাজির হন শাহরুখ। অনেক সময়ই কিং খানের সঙ্গে থাকেন দুই সন্তান সুহানা খান এবং আরিয়ান খান। গুজরাট টাইটান্সের বিপক্ষে অভাবনীয় জয়ের পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সবাই রিংকুর প্রশস্তি গেয়েছেন।

সুহানা খানের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে রিংকু সিংয়ের ব্যাটিং/স্ক্রিনশট

ম্যাচের পর টুইটারে শাহরুখ খান তো রিংকুকে নিজের অভিনীত সর্বশেষ সিনেমার নাম ভূমিকা “পাঠান” হিসেবেই স্বীকৃতি দিয়েছেন। ইনস্টাগ্রামে রিংকুর ব্যাটিংয়ের ছবি দিয়ে আরিয়ান খান ইংরেজিতে লিখেছেন, “বিস্ট”, বাংলায় যার অর্থ বুনো। অন্যদিকে, একই ছবি ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে দিয়ে সুহানা লিখেছেন  “আনরিয়েল”, যার বঙ্গার্থ অবাস্তব।

About

Popular Links